,

AD
নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

‘আমাদের প্রডাক্ট ম্যানেজ করার দায়িত্ব নতুন প্রজন্মের’

লাইক এবং শেয়ার করুন

জি.এ.মিল্টন,রাবি প্রতিনিধি: ‘আগে বাংলাদেশ রিলিফ নিতো, এখন বাংলাদেশ রিলিফ দিচ্ছে। আগে খাদ্যে ঘাটতি ছিলো, এখন উদ্বৃত্ত হয়। বর্তমানে বাংলাদেশ ঔষুধ, জাহাজসহ অনেককিছু রপ্তানি করছে। আমাদের প্রডাক্ট আছে এগুলোকে ম্যানেজ করার দায়িত্ব আমাদের নতুন প্রজন্মের।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ইনস্টিটিউট অব বিজনেস এ্যাডমিনিস্ট্রেশন (আইবিএ)’র ৪র্থ স্নাতক উৎসবে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। শনিবার সকাল দশটায় আইবিএ ভবনের সামনে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের (ইউজিসি) চেয়ারম্যান অধ্যাপক আবদুল মান্নান বলেন, ‘ ডোনাল্ড ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট হয়েই পৃথিবীর অনেককেই অবজ্ঞা করা শুরু করেছেন। কিন্তু সর্বপ্রথম ফোন করেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে। কারণ ভারতের রয়েছে দক্ষ জনশক্তি। যুক্তরাষ্ট্রের ৩০ শতাংশ ডাক্তার ভারতীয়, নাসার ৩৩ শতাংশ বিজ্ঞানী ভারতীয়। এটা সম্ভব হয়েছে কারণ তাদের নেতৃবৃন্দ জনসম্পদ উন্নয়নে বিনিয়োগ করেছিল। তাই তারা এখন বিশ্বের চতুর্থ অর্থনীতির দেশে পরিণত হয়েছে।’

আইবিএ স্নাতকদের উদ্দেশ্যে ইউজিসি চেয়ারম্যান বলেন, আপনি যতদিন শিখতে থাকবেন ততদিন জ্ঞানের রাজ্যে বিচরণ করবেন, আর যখনই শিক্ষা গ্রহণ বন্ধ করবেন তখন থেকেই মূর্খদের রাজ্যে বিচরণ করা শুরু করবেন। শেখার জন্য ক্লাসরুমে আসতে হবে তা নয়, বিভিন্নভাবে, বিভিন্ন উৎস ব্যবহার করে শিখতে হবে।

রাবির সাবেক প্রক্টর শহীদ ড. শামসুজ্জোহাকে স্মরণ করে তিনি বলেন, ‘আগে বাংলাদেশের সকল বিশ্ববিদ্যালয়ের বাজেট ছিলো ৩০০ কোটি টাকা। সম্প্রতি শুধু রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ই ৩৬৪ কোটি টাকার উন্নয়ন বাজেট পেয়েছে। সুতরাং টাকা কোন সমস্যা নয়। প্রয়োজন প্রতিযোগিতা করার মানসিকতা।

স্নাতকদের উদ্দেশ্যে অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি ইউজিসি’র সদস্য অধ্যাপক ড.মু. শাহনেওয়াজ আলী বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমরা একটি কল্যাণকর, উন্নত জাতি হিসেবে এগিয়ে যাচ্ছি। তারই নেতৃত্বে আপনাদের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন বাস্তবায়নের কাজ করতে হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মুহম্মদ মিজানউদ্দিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন উপ-উপাচার্য অধ্যাপক চৌধুরী সারওয়ার জাহান। স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন আইবিএ’র পরিচালক অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম। এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিনট্রার অধ্যাপক এন্তাজুল হক, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক সায়েন উদ্দিন আহমেদ,। অনুষ্ঠানের শুরুতে প্রত্যেক ব্যাচের প্রথম স্থান অর্জনকারী ১২ জন শিক্ষার্থীকে স্বর্ণপদক প্রদান করা হয়। এসময় নিজেদের অভিজ্ঞতা শেয়ার করেন মুজাহিদুল ইসলাম জাহিদ ও গোলাম মহিউদ্দিন।

প্রসঙ্গত, অনুষ্ঠানে আইবিএ’র এক্সিকিউটিভ এমবিএ, সান্ধ্যকালীন এমবিএ, দিবাকালীন এমবিএ এবং এমবিএ ফর বিবিএ ক্যাটাগরি থেকে ১২টি ব্যাচের মোট ৪৪৮ জন শিক্ষার্থীর হাতে সনদপত্র তুলে দেয়া হয়।

 


লাইক এবং শেয়ার করুন
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

আরও অন্যান্য সংবাদ