,

AD
নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

অভিনেত্রী না হলে সাংবাদিক হতেন শবনম ফারিয়া

লাইক এবং শেয়ার করুন

মিষ্টি হাসি দিয়ে এই অভিনেত্রী জয় করেছেন অনেকের হৃদয়, শবনম ফারিয়া মডেলিং কিংবা অভিনয়, দুই ক্ষেত্রেই দারুণ জনপ্রিয় কিন্তু সবার চেয়ে একটু ভিন্ন। অজস্র নাটকে এবং বিজ্ঞাপনচিত্রে অভিনয় করে বুঝিয়ে দিয়েছেন অভিনেত্রী এবং মডেল হিসেবে পাকা হতেই তিনি মিডিয়াতে যাত্রা শুরু করেছিলেন। সাফল্য এখন তার কাঁধেই ভর করে হেঁটে চলেছে বহুদূর।
 
মডেল ও অভিনেত্রী শবনম ফারিয়া জানালেন তার মনের কথা। বললেন, অভিনয় না করলে সাংবাদিক হতেন তিনি। প্রথম কাজের অভিজ্ঞতার কথা বলতে গিয়েই তিনি ফিরে যান পুরনো স্মৃতিতে, খোলা মনে বলে ফেলেন অনেক কথা। ‘প্রথমে তো আমার ফ্যামিলি আমাকে অভিনয় করতে দিতেই চায় নি। এর জন্য রাগ করে আমি তিন দিন না খেয়েই ছিলাম। তারপর বাবা মা বলল, যাও। এটাই প্রথম এটাই শেষ! বাকিটা তো সবারই জানা।
ফারিয়া বলেন, ফ্যানদের নিয়ে তো অনেক মজার মজার ঘটনাই আছে। একবার নিউ ইয়র্কের টাইমস স্কোয়ারে এক ভক্ত আই লাভ ইউ লেখা প্লেকার্ড নিয়ে দাঁড়িয়েছিল। পরে তা সেখানকার বিগ স্ক্রিনে দেখানো হয়। এটি আবার সে আমাকে পাঠায়। প্রায়ই এরকম অভিজ্ঞতার মুখোমুখি হতে হয়।
বিশেষ দিনগুলোতে শুটিং না রাখারই চেষ্টা করেন। দিনভর ঘুরে বেড়ানোর শখ এই মডেলের। শহুরে জীবনযাপনে যানজট একেবারেই পছন্দ নয় ফারিয়ার। যানজটের ভয়ে এখন আর টিএসসির পথ মাড়ান না তিনি!
 
শবনম ফারিয়া বলেন, তবে কয়েক বছর আগেও বিভিন্ন দিবসে বন্ধুদের সঙ্গে দিনভর ঘুরে বেড়াতেন ঢাকার আনাচে কানাচে। বিশেষ করে ফাল্গুন বসন্তে শাড়ি তো পরতেই হতো। সঙ্গে মাথায় ফুল লাগাতাম, এটা ছাড়া কী আর ফাল্গুন জমে? সত্যিই তো, খোঁপায় ফুল না থাকলে কী ফাল্গুনের সাজটা পূর্ণতা পায়, বলুন? ফারিয়া মা বাবার সম্পর্কে বলেন, ভালোবাসার সবচেয়ে বড় দাবিদার মা বাবা এই দুজনই! তাই তাদের সান্নিধ্যেই কাটিয়ে দেন ফারিয়া।

লাইক এবং শেয়ার করুন
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আরও অন্যান্য সংবাদ