,

AD
নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

মাহিয়া মাহির বিয়ে

লাইক এবং শেয়ার করুন

রাজধানীর উত্তরায় বুধবার দুপুরে চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহির সঙ্গে সিলেটের সন্তান মাহমুদ পারভেজ অপুর বিয়ে হয়। এরপর বুধবার সন্ধ্যায় রাজধানীর উত্তরার একটি কমিউনিটি সেন্টারে মাহি-অপুর দুই পরিবারের আত্মীয় এবং সাংবাদিকদের নিয়ে বিবাহোত্তর সংবর্ধনার আয়োজন করা হয়। আর সেখানেই লাল শাড়িতে নিজেকে জড়িয়ে মাথায় টিকলি, নাকে নোলক, হাতে চুড়ি দিয়ে বিয়ের পর বধূবেশে স্বামীকে নিয়ে প্রকাশ্যে আসেন ঢাকাই ছবির এই জনপ্রিয় নায়িকা। উল্লেখ্য, দুই পরিবারের সম্মতিতে অপু-মাহির বিয়ে হয়। মাহির স্বামী অপু যুক্তরাজ্য থেকে কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারিং-এ স্নাতকোত্তর শেষ করেছেন। বর্তমানে তিনি পারিবারিক ব্যবসার সঙ্গে জড়িত।Mahia Mahi.02মাহির বিয়ের গুজব ছড়িয়ে পড়লেও সেটা বুধবার দুপুর দেড়টায় সিলেটের সন্তান মাহমুদ পারভেজ অপুর সাথে পরিণয়ে আবদ্ধ হন। দুপুরে মাহিয়া মাহিয়া নববার্তা.কম -কে বিয়ের খবর নিশ্চিত করে বলেছিলেন, ‘সন্ধ্যায় প্রকাশ্যে আসবো। আপনাদের দাওয়াত রইল।’ সন্ধ্যায় রাজধানীর উত্তরার একটি কমিউনিটি সেন্টারে মাহি-অপুর দুই পরিবারের আত্মীয় এবং সাংবাদিকদের নিয়ে বিবাহোত্তর সংবর্ধনার আয়োজনে উপস্থিত স্বামীসহ।  সাংবাদিকদের সাথে পরিচয় করিয়ে দেন তাঁর জীবন সঙ্গীর সাথে।

Mahia Mahi.03রূপালী পর্দা ছাপিয়ে এবার প্রথমবারের মতো কনে সাজে সাজলেন মাহি। ক্রিম কালারের কারুকাজখচিত লাল পাড়ের শাড়িতে বউ সেজেছেন মাহি। গতরাতে হলুদের অনুষ্ঠানে মাহিকে দেখা গেছে হলদে রঙ শাড়িতেই। হাতভর্তি মেহেদীর আল্পনা সেজেছেন তিনি। মাহির পাত্র সিলেটের কদমতলীর ব্যবসায়ী মাহমুদ পারভেজ অপু। চার বছর ধরে একজন আরেকজনকে চেনেন। তবে বিয়েটা করছেন পরিবারের পছন্দেই। তাদের পরিচয় থাকলেও উভয় পরিবারের সম্মতিতেই মাহি এবং অপুর বিয়ে সম্পন্ন হচ্ছে।
Mahia Mahi.04মাহমুদ পারভেজ অপু সিলেটের দক্ষিণ সুরমা উপজেলার কদমতলী গ্রামের বাসিন্দা আব্দুল মান্নানের ছেলে। চার ভাইয়ের মধ্যে তিনি দ্বিতীয়। বড় ভাই লন্ডন প্রবাসী এবং বাকি দুই ভাই লেখাপড়া করছেন। অপু দীর্ঘ দিন থেকে তার বাবার কয়লা ব্যবসার ও দুটি ইট ভাট্টার ব্যবসা দেখাশুনা করেন।
সিলেট সিটি করপোরেশনের ভেতরে থাকলেও বাড়ির পরিবেশ অনেকটা গ্রামের অঞ্চলের মতো। কদমতলী বাস স্ট্যান্ড থেকে প্রায় আধা কিলোমিটার দূরে অপুর বাড়ির অবস্থান। গোলাপগঞ্জ বিয়ানীবাজার সড়কে গিয়ে অপুর বাড়িতে যেতে হয়।
Mahia Mahi.05বাড়িতে কোন সীমানা পাচীর নেই। তবে বাড়ির প্রবেশ মূখে একটি পাকার স্তম্ভতে ‘স্বর্ণশিখা’ আ/এ, বাড়ি নং ১৪০, ব্লক ‘এ’ লেখা রয়েছে। এছাড়াও বাড়ির প্রবেশ মূখে একটি বড় পুকুর রয়েছে। পুকুর পাড়ের দক্ষিন দিকে রয়েছে বাঁশ, পূর্ব পাড়ে ফল ও সুপারি বাগান। প্রবেশ মূখে থেকে বাড়ির আঙ্গিনা পর্যন্ত রাস্তার দু’পশে সারিবদ্ধ সুপারি গাছ লাগানো। পাহারাদারদের জন্য রয়েছে একটি ঘর। রয়েছে গাড়ি রাখার একটি গ্যারেজও।
Mahia Mahi.06বিয়ে প্রসঙ্গে মাহি বলেন, ‘আল্লাহর অশেষ রহমতে খুব ভালো মনের একজন মানুষকে স্বামী হিসেবে পেয়েছি। অপু গ্রামের সহজ সরল সাধারণ একজন মানুষ। এমন একজন মানুষই আমার জীবনে আমার পাশে চেয়েছিলাম। আল্লাহ আমার সেই ইচ্ছে পূরণ করেছেন।’ নায়িকা বলেন, ‘(বুধবার) দুপুরের একটু আগেই আকদ হলো। অনেক ফুরফুরে লাগছে নিজেকে। নতুন জীবনে পা দিলাম। সবাই দোয়া করবেন।’ এর আগে গতকাল রাতে সাদামাটা আয়োজনে হলুদ সন্ধ্যার আয়োজন করা হয়েছিল। হলুদ সন্ধ্যায় মিডিয়ার কেউই ছিলেন না। এমনকি মাহির সবচেয়ে ঘনিষ্টজনদেরও দেখা যায়নি। শুধুমাত্র কাছে কয়েকজন বন্ধু ছিলেন।
Mahia Mahi.07এদিকে মাহির গায়ে হলুদ ও আকদ অনুষ্ঠানের বিশেষ কিছু ছবি ফেসবুকে পোস্ট করেছেন তার বোন ফাহমিদা রূপন্তী মৌ। সেখানেই দেখা গেল মাহিকে কনে সাজে। ছবিতে মাহিকে দারুণ উৎফুল্লই লাগছিল। প্রসঙ্গত, এর আগে বন্ধুর সঙ্গে বিয়ের গুজব ওঠে মাহির। এছাড়া প্রযোজক আবদুল আজিজের সঙ্গে প্রেমের গুঞ্জন ছিল মাহিকে নিয়ে সিনেমা পাড়ায় আলোচিত ঘটনা। সম্প্রতি আবদুল আজিজ মাহির সঙ্গে তার প্রেমের বিষয়টি স্বীকার করেছেন। ধারণা করা হচ্ছে, আজিজের এমন তথ্য ফাঁসই মাহিকে গোপনে ত্বরিৎ বিয়ের সিদ্ধান্ত নিতে প্রভাবিত করেছে।


লাইক এবং শেয়ার করুন
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আরও অন্যান্য সংবাদ