,

AD
নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

পানি বণ্টনেই ভারত-বাংলাদেশের ভবিষ্যত : প্রধানমন্ত্রী

লাইক এবং শেয়ার করুন

সব অভিন্ন নদীর পানি বণ্টনেই ভারত-বাংলাদেশের ভবিষ্যত সম্পর্ক নিহিত বলে মনে করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সোমবার (১০ এপ্রিল) সকালে নয়াদিল্লিতে ইন্ডিয়া ফাউন্ডেশনের দেয়া সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‌‘আমরা দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি, দুই দেশের সম্পর্ক আরও মজবুত করতে আমাদের যৌথ পানিসম্পদকে কাজে লাগাতে হবে। সব অভিন্ন নদীর পানি বণ্টনে অববাহিকাভিত্তিক একটি বিস্তৃত পরিকল্পনার মধ্যেই আমাদের যৌথ ভবিষ্যত নিহিত।’

‘দুই দেশের বর্তমান সরকারের মেয়াদেই তিস্তার পানিবণ্টন সমস্যার সমাধানে পৌঁছনো যাবে’ ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর এমন মন্তব্যে প্রসঙ্গ উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী যত দ্রুত সম্ভব তিস্তার সমাধান করতে তার সরকারের আন্তরিক আগ্রহের কথা পুনর্ব্যক্ত করেছেন। আর তা বাস্তবায়ন হলে ভারত-বাংলাদেশ সম্পর্ক আরও একটি রূপান্তরের মাধ্যমে নতুন পর্যায়ে পৌঁছাবে।” ইন্ডিয়া ফাউন্ডেশনের আয়োজনে এ অনুষ্ঠানে ভারতের সাবেক উপ-প্রধানমন্ত্রী এল কে আদভানিও উপস্থিত ছিলেন। 

গত ৭ এপ্রিল ৪ দিনের রাষ্ট্রীয় সফরে ভারতের উদ্দেশে ঢাকা ছাড়েন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। দুপুরে ১টার দিকে দিল্লিতে পালাম স্টেশন বিমানবন্দরে অবতরণ করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এসময় ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি তাকে স্বাগত জানান। এসময় ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি তাকে স্বাগত জানান। শনিবার (০৮ এপ্রিল) সকাল সাড়ে ৯টার দিকে ভারতের দিল্লিতে রাষ্ট্রপতি ভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে গার্ড অব অনার দেয়ার মাধ্যমে আনুষ্ঠানিক পর্ব শুরু হয়।

পরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভারতের ব্রিটিশবিরোধী অহিংস আন্দোলনের কিংবদন্তী নেতা মহাত্মা গান্ধীর স্মৃতিসৌধে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। এরপর হায়দরাবাদ হাউসে গিয়ে নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে শেখ হাসিনা শীর্ষ বৈঠকে বসেন। বৈঠকের পর দুই প্রধানমন্ত্রীর উপস্থিতিতে ২২টি চুক্তি ও সমঝোতা স্মারক সই হয়।

৪ দিনের রাষ্ট্রীয় সফরের ৩য় দিনে রবিবার (০৯ এপ্রিল) ভারত উপমহাদেশের আধ্যাত্মিক সুফি সাধক খাজা মঈনুদ্দিন চিশতির (র.) মাজার ‌‘আজমির শরিফে’ যান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সেখান থেকে ফিরে বিকেলে প্রধানমন্ত্রী আনুষ্ঠানিকভাবে ভারতের রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জির আমন্ত্রণে এক নৈশভোজে যোগ দেন। এছাড়া সন্ধ্যায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং, কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধী এবং কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন। আজ সোমবার (১০ এপ্রিল) বিকেলে ঢাকার উদ্দেশ্যে দিল্লি ত্যাগ করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।


লাইক এবং শেয়ার করুন
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আরও অন্যান্য সংবাদ