,

AD
নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

যুক্তরাষ্ট্রকে ৪-০ গোলে হারিয়ে ফাইনালে আর্জেন্টিনা

লাইক এবং শেয়ার করুন

মেসির রেকর্ডের দিনে দক্ষিণ আমেরিকার শ্রেষ্ঠত্বের আসরে ফাইনালে জায়গা করে নিয়েছে আর্জেন্টিনা। কোপার শতবর্ষী এই আসরে স্বাগতিক যুক্তরাষ্ট্রকে ৪-০ গোলে হারিয়ে ২৩ বছরের শিরোপা খরা কাটানোর দিকে আরও এক ধাপ এগিয়ে গেলেন মেসি-হিগুয়েনরা। ক্লাব ফুটবলে সাফল্যের পরশে থাকলেও জাতীয় দল আর্জেন্টিনার হয়ে বলার মতো কিছুই জিততে পারেননি লিওনেল মেসি। এক বছর আগে ব্রাজিল বিশ্বকাপে রানার্সআপ হওয়া আর্জেন্টিনার ওই ক্ষতে প্রলেপ দেয়ার সুযোগ এসেছিল গত কোপা আমেরিকা ফুটবলে।

ফাইনালে পৌঁছে ২২ বছরের শিরোপা খরা কাটানোরও কাছাকাছি পৌঁছে গিয়েছিল। কিন্তু এবারও ফাইনালে হারের বেদনায় জ্বলতে হয়েছে আর্জেন্টিনাকে। আর এ পরাজয়ের জন্য সবচেয়ে বেশি দায়ী করা হচ্ছে অধিনায়ক লিওনেল মেসিকে। এই হারের পর আবারও সেই প্রশ্নটা এসেছিল ‘মেসি আসলে বার্সিলোনার, না আর্জেন্টিনার ’।

তবে এবার কোপার শতবর্ষী এই আসরে শুরু থেকেই সেই জবাব দিয়ে যাচ্ছেন মেসি। এরই ধারাবাহিকতায় হিউস্টনের এনআরজি স্টেডিয়ামে ফাইনালের লক্ষ্য নিয়ে স্বাগতিক যুক্তরাষ্ট্রের মুখোমুখি মেসি-হিগুয়েনরা। সেমিফাইনালে ম্যাচের শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক হয়ে খেলতে থাকা আর্জেন্টিনা ম্যাচের ৩ মিনিটেই লাভাজ্জির গোলের এগিয়ে যায়। মেসির বাড়ানো গোল করেন পিএসজি তারকা।

ম্যাচের ৩২ মিনিটে দর্শনীয় এক ফ্রি কিক থেকে রেকর্ড গড়া গোলে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন মেসি নিজেই। ৭২ হাজার দর্শকের সামনে ২০০ গজ দুর থেকে ফ্রি-কিকে দুর্দান্ত এক গোল করে আর্জেন্টিনার ইতিহাসের সর্বোচ্চ গোল দাতা হিসাবে বাতিস্তুতার উপরে এখন মেসি! সেই সাথে নিজের দেশ আর্জেন্টিনাকে ৪-০ তে জয়ী করে কোপা আমেরিকার ফাইনালে পৌঁছে দিলেন।শুভকামনা রেকর্ডের ঈশ্বর মেসিকে।

ডি-বক্সের খানিকটা বাইরে মেসিকে ফাউল করে বিপদ ডেকে আনেন ক্রিস ওন্ডোলোভস্কি। ফ্রি-কিক নেওয়ার আগে বুটের ফিতা সময় নিয়ে বাঁধলেন মেসি। তারপর নিলেন বাঁ পায়ের বাঁকানো এক শট। বল ডান কোণের ক্রসবার ঘেঁসে ঢুকলো জালে। আর এ গোল দিয়ে আর্জেন্টাইন কিংবদন্তী বাতিস্তুতার রেকর্ড ভেঙ্গে সর্বোচ্চ গোল দাতা হলেন বার্সার এই তারকা। ফলে ২-০ গোলে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় মেসি-হিগুয়েনরা।

বিরতি থেকে ফিরে নিজের প্রথম গোল করে দলকে ৩-০ তে লিড এনে দেন নেপোলি তারকা হিগুয়েন। ম্যাচের ৫০ মিনিটে স্বাগতকদের গোলরক্ষকের ভুলে বল পেয়ে গোল করেন এই তারকা। আর ম্যাচের শেষ দিকে মেসির বাড়ানো বলে নিজের দ্বিতীয় গোল করে ৪-০ গোলের বড় জয় নিয়ে ফাইনাল নিশ্চিত করে মেসি-হিগুয়েন-লাভাজ্জিরা।


লাইক এবং শেয়ার করুন
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

আরও অন্যান্য সংবাদ