,

AD
নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

মিরাজের ঘূর্ণিতে লণ্ডভণ্ড ইংল্যান্ড, দিন শেষে ২৫৮/৭

লাইক এবং শেয়ার করুন

অভিষিক্ত মেহেদী হাসান মিরাজের বিষাক্ত স্পিন ছোবলে লণ্ডভণ্ড ইংল্যান্ড। এক এক করে স্পিন বিষে কুপোকাত করলেন পাঁচ ইংলিশ ব্যাটসম্যান। অভিষেকেই আলো ছড়ালেন তিনি। স্মরণীয় করে রাখলেন নিজের অভিষিক্ত ম্যাচ। প্রথমে ডাকেট, ব্যালান্স, রুট, মঈন আলী পঞ্চম উইকেটে শিকার হলেন বেয়ারস্টো। শুরুর ধাক্কা সামলানোর চেষ্টা করছিলেন মঈন আলী ও বেয়ারস্টো জুটি। কিন্তু আর পার হলো না। মিরাজের চতুর্থ ও পঞ্চম শিকার হয়ে মাঠ ছাড়লেন দুজনই। তার আগে তিনবার আম্পায়ারের আউটের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে রিভিউ নিয়ে বেঁচে যান মঈন।

সকালে টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমেছিল ইংল্যান্ড। কুকের ধারণা ছিল হয়তো সুযোগ লুফে নিতে পারবে তার দল।  কিন্তু টাইগারদের স্পিনে পুরোপুরি খেই হারিয়ে ফেলে ইংলিশরা।  যার শুরুটা করেন অভিষিক্ত মিরাজ।  দলীয় ১৮ রানেই ক্যারিয়ারের প্রথম উইকেট শিকার করে নেন তিনি।  ৯.৫ ওভারে নিজের প্রথম স্পেলেই সাফল্য পান অভিষেক হওয়া এই স্পিনার। তার বলে বোল্ড হয়ে ফিরে যান ওপেনার ডাকেট (১৪)। ১১তম ওভারে নতুন করে বোলিংয়ে এসেই আঘাত হানেন সাকিব। তার বলে পুরোপুরি পরাস্ত হন অ্যালিস্টার কুক। সুইপ করতে গিয়েও ঠিকমতো পারেননি।  বল তার হাতের ওপরের অংশে লেগে আঘাত হানে স্টাম্পে। সর্বাধিক টেস্টের রেকর্ড গড়া কুক ফিরে যান ২৬ বলে ৪ রান করে।

দুই উইকেট হারিয়ে ধুঁকতে থাকা ইংলিশদের এরপরও ঘূর্ণি জাদুতে ভোগাচ্ছিলেন মিরাজ। যার ফসল হিসেবে আসে তার অভিষেক টেস্টের দ্বিতীয় শিকার। গ্যারি ব্যালান্সকে ফেরাতে এলবিডব্লিউর আবেদন করেছিল টাইগাররা। যদিও তাতে সাড়া দেননি আম্পায়ার। তবে রিভিউ নিয়ে তাকে ঠিকই সাজঘরে ফেরায় বাংলাদেশ। ৭ বলে ১ রানে ফিরে যান ব্যালান্স। তবে এরপর ধীরে ধীরে প্রতিরোধ দিতে থাকে দুই ইংলিশ ব্যাটসম্যান মঈন আলী ও রোজ রুট। চতুর্থ উইকেটে আসে ৬০ রান। রুট ব্যাট করছেন ৩৮ রানে আর মঈন ১৭ রানে। মধ্যাহ্নভোজের আগে সফরকারীদের সংগ্রহ ৩ উইকেটে ৮১ রান। সে হিসেবে প্রথম সেশনে ভালোভাবেই নিজেদের আধিপত্য রেখেছে স্বাগতিকরা।  বিরতির পরও একই ধারায় ছিল স্বাগতিকদের বোলিং।  যেখানে বোলিংয়ে এসেছিলেন সাকিব।  তার এ ওভারেই (২৯তম) দুই বার একই ব্যাটসম্যান মঈন আলীকে এলবিডব্লিউতে আউট করার চেষ্টায় ছিলেন তিনি! অনফিল্ড আম্পায়ার আউট দিলেও পরে রিভিউতে দুবারেই বেঁচে ফিরেন মঈন আলী। তবে এরপরের ওভারে আর টিকে থাকতে পারেননি তার সঙ্গে প্রতিরোধ দেয়া জো রুট।

৪০ রানে এগিয়ে যাওয়া এই ব্যাটসম্যানকে থামান অভিষেকে উজ্জল মিরাজ। অবশ্য মুশফিকের হাঁটুতে বল লেগেই স্লিপে সাব্বিরের হাতে তালুবন্দী হন রুট।  এরপর অবশ্য জুটি গড়ার চেষ্টায় ছিলেন স্টোকস ও মঈন।  ধীরে ধীরে সেভাবেই এগোচ্ছিলেন কিন্তু দলীয় ১০৬ রানে নিজের দুর্দান্ত স্পিনে স্টোকসকে পুরোপুরি পরাস্ত করেন সাকিব।  বোল্ড হয়ে ফিরে যান তিনি।  ততক্ষণে তার স্কোর ছিল ১৮ রান। এরপর অবশ্য ব্যাটে প্রতিরোধ দিতে থাকেন মঈন আলী।  বেয়ারস্টোকে সঙ্গে নিয়ে ক্যারিয়ারের অষ্টম হাফসেঞ্চুরি পূরণ করেছেন মঈন।  ধীরে ধীরে ভালোই প্রতিরোধ গড়ছিলেন সঙ্গীকে নিয়ে।  কিন্তু ৬৮তম ওভারে মিরাজের বোলিংয়ে আর মনোযোগ স্থির রাখতে পারেননি মঈন।  ৬৮ রানে কট বিহাইন্ড হয়ে ফিরতে বাধ্য হন তিনি।  দলীয় ২৩৭ রানে আউট হন বেয়ারস্টো সফরকারীদের সংগ্রহ ৭ উইকেটে ২৩৮ রান।  ক্রিজে আছেন ওকস (৩৬) ও রশিদ (৫)।

এরআগে ইংলিশদের বিপক্ষে দুই ম্যাচের প্রথম টেস্টটি মাঠে গড়ায় বৃহস্পতিবার সকাল দশটায়।  টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ইংল্যান্ডের অধিনায়ক অ্যালিস্টার কুক। টস করতে নেমেই ইংল্যান্ডের হয়ে সবচেয়ে বেশি টেস্ট খেলার রেকর্ড শুধু নিজের করে নেন অধিনায়ক কুক (১৩৪)। সাবেক অধিনায়ক অ্যালেক স্টুয়ার্টকে পেছনে ফেলেছেন বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান।

ইংল্যান্ড ১ম ইনিংস: ৯২ ওভার ২৫৮/৭ (কুক ৪, ডাকেট ১৪, রুট ৪০, ব্যালান্স ১, মঈন আলী ৬৮, স্টোকস ১৩, বেয়ারস্টো ৫২, ওকস ৩৬*, রশিদ ৫*; শফিউল ০/৩৩, মিরাজ ৫/৬৪, রাব্বি ০/৪১, সাকিব ২/৪৬, তাইজুল ০/২৮,সাব্বির ০/১১, মাহমুদুল্লাহ ০/১৭ )

বাংলাদেশ দল:
তামিম ইকবাল, ইমরুল কায়েস, মুমিনুল হক, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম, সাব্বির রহমান, মেহেদী হাসান মিরাজ, শফিউল ইসলাম, তাইজুল ইসলাম ও কামরুল ইসলাম রাব্বি।

ইংল্যান্ড দল:
অ্যালিস্টার কুক, বেন ডাকেট, জো রুট, গ্যারি ব্যালান্স, বেন স্টোকস, জনি বেয়ারস্টো, মঈন আলী, ক্রিস ওকস, আদিল রশিদ, গ্যারেথ ব্যাটি, স্টুয়ার্ট ব্রড।


লাইক এবং শেয়ার করুন
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আরও অন্যান্য সংবাদ