,

AD
নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

মোসাদ্দেকের বীরত্বের দিনে বাংলাদেশের হার

লাইক এবং শেয়ার করুন

আফগানিস্তানের বিপক্ষে সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডেতে হেরেই গেল বাংলাদেশ। এতে করে শততম ওয়ানডে জয়ের প্রতীক্ষা আরো বাড়লো মাশরাফিদের। বাংলাদেশকে ২ উইকেটে হারিয়ে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে ১-১ এ সমতা আনলো আফগানিস্তান।  ২০৯ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে ২ বল বাকি থাকতে লক্ষে পৌঁছে যায় আফগানিস্তান। অল্প রানের পুঁজি নিয়েও লড়াই করেছে বাংলাদেশ। তবে এ ম্যাচেও স্টাম্পিং মিস ও ক্যাচ মিসের কারণে হারতে হয়েছে বাংলাদেশকে।

এদিন ইনিংসের চতুর্থ ও নিজের দ্বিতীয় ওভারে আফগান শিবিরে প্রথম আঘাত হানেন অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। তার জোড়া আঘাতে লড়াইয়ে ফেরে বাংলাদেশ।  আফগান ওপেনার নওরাজ মঙ্গল ও রহমাত শাহকে ফেরান সাকিব। আফগান ওপেনার মোহাম্মদ শেহজাদ নিজের তৃতীয় শিকারে পরিণত করেন সাকিব। ইনিংসের ১৬তম ওভারের প্রথম বলে পয়েন্টে তাসকিন আহমেদের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন ৩৫ রান করা শেহজাদ।

তবে দ্রুত চার উইকেট হারানো আফগানিস্তান প্রতিরোধ গড়ে আসগর স্তানিকজাই ও মোহাম্মদ নবীর শত রানের জুটিতে। অবশেষে ৪০তম ওভারের প্রথম বলে নবীকে (৪৯) এলবিডব্লিউ করে ফেরান অধিনায়ক মাশরাফি। তার পরের ওভারে স্তানিকজাইকে (৫৭) ফিরিয়েছেন মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। এরপর ৪৭তম ওভারে নিজের চতুর্থ উইকেট শিকার করে বাংলাদেশের আশা জিইয়ে রাখে বাংলাদেশ। কিন্তু ৪৯তম ওভারে মিরওয়াইস আশরাফ মোসাদ্দেক হোসেনকে ছক্কা মারলে ম্যাচ থেকে ছিটকে যায় বাংলাদেশ।

শেষ ওভারে জয়ের জন্য আফগানদের প্রয়োজন ছিল ২ রান। তাসকিন দ্বিতীয় বলে ওয়াইড দিলে স্কোর লেভেল হয়। তবে তৃতীয় বলে নাজিবুল্লাহকে ফিরিয়ে কিছুটা আশা বাঁচিয়ে রাখেন তাসকিন। তবে চতুর্থ বলে ৪ মেরে আফগানিস্তানকে জয় এনে দেয় দৌলত জাদরান। বাংলাদেশের বোলারদের হয়ে  সাকিব সর্বোচ্চ ৪টি উইকেট নেন। এছাড়া মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত নেন ২ উইকেট। নিজেদের শততম ওয়ানডে জয়ের মিশনে মাঠে নামা বাংলাদেশ অভিষিক্ত মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতের অপরাজিত ৪৫ রানের সুবাদে আফগানদের ২০৯ রানের টার্গেট দেয়।
 
এদিন টসে হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নামে বাংলাদেশ। দুই ওপেনার তামিম ইকবাল ও সৌম্য সরকারের শুরুটা ভালোই করেছিলেন। এ দুইজনে ওপেনিং জুটিতে ৪৫ রান করেন। ইনিংসের ১১তম ওভারের চতুর্থ বলে  মিরওয়াইস আশরাফের বলে উড়িয়ে মারতে গিয়ে আউট হন তামিম। আউট হওয়ার আগে ৩৬ বলে ২০ রান করেছেন তিনি। তামিম আউট হওয়ার  ১ ওভার পরেই মিরওয়াইস আশরাফের বলেই সমান ২০ রান করে ফেরেন সৌম্য সরকার।
 
এরপর মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ও মুশফিকুর রহিমের ব্যাটে কিছুটা প্রতিরোধ গড়ে বাংলাদেশ। তৃতীয় উইকেটে অর্ধশত (৬১) রানের জুটি গড়েন এই দুই জন। দলীয় ১১১ রানে রিয়াদ ২৫ রান করে নাভেন উল হকের বলে বোল্ড হয়ে ফেরেন। এর পর সাকিব এসে মুশফিকের সঙ্গে জুটি বাঁধেন। কিন্তু বড় স্কোর করার আভাস দিয়ে মুশফিকও দলীয় ১২২ রানে রহমত শাহের বলে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন।
 
এরপর দলীয় ১৩৮ রানের মাথায় সাকিব (১৭) ও সাব্বির রহমান (৪) রান করে ফিরে গেলে চাপে পড়ে বাংলাদেশ। তবে সাত নম্বরে নামা অভিষিক্ত মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত শেষ উইকেট জুটিতে রুবেল হোসেনকে সঙ্গে নিয়ে ৪৩ রানের জুটি গড়লে ২০৮ রান করতে সমর্থ হয় বাংলাদেশ।  আফগান বোলারদের হয়ে স্পিনার রশিদ খান সর্বোচ্চ ৩ উইকেট নেন। এছাড়া মিরওয়াইস আশরাফ ও মোহাম্মদ নবী ২টি করে উইকেট নেন। 


লাইক এবং শেয়ার করুন
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

আরও অন্যান্য সংবাদ