,

AD
নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

তামিলনাড়ুতে পাল্লা ভারী হচ্ছে পনীরের, কমছে শশীর

লাইক এবং শেয়ার করুন

ক্ষমতা দখলের লড়াই যতো তীব্র হচ্ছে, দুই শিবিরের মধ্যে উত্তেজনা ততোই বাড়ছে। স্থান ভারতের তামিলনাড়ু অঙ্গরাজ্য আর প্রতিদ্বন্দ্বী প্রয়াত মুখ্যমন্ত্রীর ছায়াসঙ্গী শশীকলা ও দীর্ঘদিনের বিশ্বাসভাজন পনীরসেলভম। এই লড়াইয়ে যতো দিন যাচ্ছে, ততো সমর্থন কমছে শশীকলার। অন্যদিকে ক্রমশ একটু একটু করে নিজের ঘর গুছিয়ে নিচ্ছেন পনীরসেলভম। জয়ললিতার উত্তরসূরি কে হবেন, তা অনেকাংশেই ঝুলে রয়েছে সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশের উপরে। সেখানে শশীকলার বিরুদ্ধে দুর্নীতি মামলার রায় কবে ঘোষণা হবে, তা এখনও নিশ্চিত নয়। এই পরিস্থিতিতে দল গোছাতে ব্যস্ত ছিল দুই শিবির।

২৩৪ আসনের তামিলনাড়ু বিধানসভায় এডিএমকে-র বিধায়ক সংখ্যা ১৩৪ জন। শশীকলা শিবিরের দাবি, ১২৯ জন বিধায়ক তাদের পক্ষে রয়েছেন। এদিকে রাজ্যসভা ও লোকসভা মিলিয়ে অন্তত দশ সাংসদ রয়েছেন পনীরসেলভমের পক্ষে। আমজনতার সমর্থনও পনীরের পক্ষে বেশি। প্রকাশ্যেই পনীরসেলভমের পাশে দাঁড়িয়েছেন তামিল সিনেমার দুই প্রভাবশালী মুখ, রামরাজন ও থাইয়াগু। প্রাক্তন বিধায়ক তথা নায়ক-পরিচালক অরুণ পান্ডিয়ানও সমর্থন জানিয়েছেন পনীরকে।

পরিস্থিতি বুঝে দ্রুত শপথ নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর গদি দখল করতে মরিয়া শশীকলা। শশী-ঘনিষ্ঠ সাংসদ আর ভাইথিলিঙ্গমের কথায়, ‘সোমবারের মধ্যে রাজ্যপাল সিদ্ধান্ত না নিলে রাজ্য জুড়ে আন্দোলনে নামার পরিকল্পনা নিতে পারেন চিনাম্মা শশীকলা।’ বিধায়কদের পাশাপাশি আমজনতার সমর্থনও যে তার দরকার, তা বিলক্ষণ বুঝতে পারছেন জয়ললিতার ৩৪ বছরের পুরনো সঙ্গিনী। তিনি বলেন, ‘যে গোষ্ঠী জয়ললিতার বিরুদ্ধে সক্রিয় ছিল, তারা এখন আমার বিরুদ্ধেও সক্রিয় হয়েছে। একজন নারীর পক্ষে রাজনীতিতে টিকে থাকা শক্ত। জয়ললিতাকেও এই সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়েছিল। এখন আমাকে হচ্ছে।’


লাইক এবং শেয়ার করুন
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আরও অন্যান্য সংবাদ