,

AD
নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

বগুড়ায় হেলথ ও ফাতেমা ক্লিনিকে ভূয়া ডাক্তারের ছড়াছড়ি

লাইক এবং শেয়ার করুন

বগুড়া প্রতিনিধি: দীর্ঘদিন ধরেই ক্লিনিক গুলোতে ভূয়া সার্টিফিকেটধারী ডাক্তার দিয়ে অপচিকিৎসা চলছিল। বগুড়ার নন্দীগ্রামে ক্লিনিকে সুনামধন্য ডাক্তারের স্বাক্ষর জাল করেও অপচিকিৎসার দায়ে বেশ কয়েকবার ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযানে ক্লিনিক সিলগালা করা হলেও কয়েকদিন পরেই খুলে যায় ক্লিনিকের সিলগালা দরজা। ফের শুরু হয় অপচিকিৎসা। রাতের আধারে ক্লিনিকে রোগী দেখার অন্তরাতে গোপনে দেহ ব্যবসারও অভিযোগ তুলেছেন এলাকাবাসি।


রোববার (২৩ এপ্রিল) নন্দীগ্রাম পৌর শহরের ফাতেমা ও হেলথ কেয়ার ক্লিনিকসহ ভুয়া ডাক্তারের জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমান আদালত।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মোসা. শরীফুুন্নেসা’র নেতৃত্বে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. তোফাজ্জল হোসেন, থানার এসআই খোকন চন্দ্র ভৌমিক, বেঞ্চ সহকারী আতাউর রহমান সহ ভ্রাম্যমান আদালতের একটি টিম হেলথ কেয়ার ক্লিনিক ও ফাতেমা ক্লিনিকে অভিযান চালায়। রেজিস্ট্রেশন বিহীন স্বাস্থ্য ব্যবসা পরিচালনা, নিয়মিত ডাক্তার না থাকা, প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত নার্স না থাকাসহ বিভিন্ন ত্র“টি থাকার অভিযোগে দুই ক্লিনিকের অর্ধলক্ষ টাকা অর্থদন্ড করেন ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারক মোসা. শরীফুুন্নেসা।এছাড়া ভূয়া সার্টিফিকেট ধারী ডাক্তার রবিউল ইসলামকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেন।
২টি ক্লিনিকে দীর্ঘদিনের অব্যবস্থাপনা ও ডাক্তার পরিচয়ে থাকা রবিউল ইসলামের যথারীতি সনদপত্র না থাকায় ভোক্তা অধিকার আইনে জরিমানা করা হয়।


স¤প্রতি গতবছর হেলথ কেয়ার ক্লিনিক সেন্টারের অপারেশন থিয়েটার(ওটি) ও প্যাথলোজি সিলগালাসহ নগদ অর্থদন্ড করেন ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারক। ভ্রাম্যমান আদালতের নিকট ক্লিনিকের পরিচালক আল মাসুদ লিখিত মুসলেকা দেন। ফাতেমা ক্লিনিক এ্যান্ড ডায়াগনষ্টিক সেন্টারে স্বাস্থ্য ব্যবসা পরিচালনায় অনুমোদন না থাকায় নগদ অর্থদন্ড করেছিল ভ্রাম্যমান আদালত। এদিকে, রাতের আধারে দেহ ব্যবসা করার অভিযোগ ওই দুটি ক্লিনিকে বেশকয়েকবার নার্সধারী কলগার্লসহ খদ্দের আটক সহ ক্লিনিক ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। এবং অপচিকিৎসায় রোগী মৃত্যুরও জনশ্রতি রয়েছে।


লাইক এবং শেয়ার করুন
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আরও অন্যান্য সংবাদ