,

AD
নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

এলো খুশির ঈদ ।। সফিউল্লাহ আনসারী

লাইক এবং শেয়ার করুন

ঈদুল ফিতর মুসলিম বিশ্বের অন্যতম আনন্দ উৎসব। একমাস সিয়াম সাধনা শেষে বিশ্ব মুসলিমের ঘরে আনন্দের বারতা নিয়ে পবিত্র ঈদুল ফিতরের আগমন ঘটে । ভেদাভেদহীন সমাজ প্রতিষ্ঠায় ঈদের ভুমিকা অপরিসীম। সাম্য-মৈত্রী-শান্তি আর মুসলিম উম্মাহর ঐক্যের সওগাত নিয়ে প্রতিবছর আমাদের মাঝে উপস্থিত হয় ঈদুল ফিতর।এদিনে হিংসা বিদ্বেষ ভুলে গিয়ে কোন মানুষের ভেতর আর আমিত্ব থাকেনা । ঈদুল ফিতর একই সাথে উৎসব এবং ইবাদাতের আধ্যত্বিক স্বাদ দিয়ে যায় প্রতিটা মুমিনের মনে।ধর্মীয় মুল্যবোধে পরিবার,সমাজ ও রাষ্ট্রীয় ব্যাবস্থাপনাকে ঈদের আনন্দ চেতনার ছোঁয়ায় মানবিকতাকে জাগ্রত করা।ঈদ শুধু নিছক আনন্দ আর ফুর্তির নয়;এ থেকে আমাদের জীবনের জন্য শিক্ষনীয় আছে অনেক কিছুই।

ইসলাম শান্তির ধর্ম। ঈদুল ফিতর মুসলমানদের ব্যাক্তি,ধর্মীয় ও জাতীয় জীবনের শ্রেষ্ঠতম আনন্দ উৎসব । পবিত্র রমজান মাসের রহমত,মাগফেরাত ও নাজাতের শেষেই আসে খুশির ঈদ। পশ্চিমাকাশে উদিত সাওয়ালের রূপালী চাঁদ আনন্দের বারতায় উদ্বেলিত করে আমাদের মন ও প্রাণ।সাওয়ালের চাঁদ উদিত হওয়ার সাথে সাথেই প্রতিটি মুমিন-মুসলমানের ঘরে ঘরে আনন্দের ঢল নামে।নবী কারিম  (সা.) বলেছেন-‘প্রত্যেক জাতিরই আনন্দ রয়েছে এটি হল আমাদের আনন্দ, ‘ঈদ’ ।

ঈদ উৎসবের আনন্দ লোক দেখানো নয়, ধর্মীয় গুরুত্বের সাথে ঈদের আনন্দ উপভোগ করেন প্রতিটা মুসলিম আবেগ ও  উপলব্দীর চেতনায়। বিশ্ব মুসলিমের সার্বজনীনতা এ উৎসবকে দিয়েছে আলাদা ঐতিহ্য ও আধ্যাত্বিক স্বাদ।অন্য ধর্মের মতো ইসলাম ধের্মের উৎসবগুলো শুধুই আনন্দ দেওয়ার জন্য নয়;সওয়াবেরও। ঈদের দিন সকালে ঈদের জামাতের আগেই গরীবদের মাঝে ফিতরা বিতরন দরিদ্র শ্রেণীর ঈদ উৎসব পালনের জন্য সহায়ক হয়,এতে করে খুশির জোয়ার সকলের মাঝেই বিরাজমান হয়। ঈদের নামাজে ধনী-দরিদ্র বিভেদহীনভাবে এককাতারে দাড়িয়ে সাম্য-মৈত্রির বারতা দিয়ে যায় প্রতিটা মুসলিমের ঘরে,এমনকি অন্য ধর্মের মানুষের মাঝেও।পবিত্র ও ত্যাগের মহিমায় আমরা ঈদকে ভাগাভাগি করে নিতে পারি গরীব, অসহায়, দরিদ্র ও দুস্থদের মাঝে নিজেদের আনন্দের কিছুটা তাদেরকে বিলিয়ে দিয়ে।

ঈদুল ফিতরে শুধু ফিতরা নয়,সাথে একটা নতুন জামা-কাপড়,সেমাই-চিনি বা নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী দান করে আমরা সমাজের সুবিধা বঞ্চিতদের ঈদের আনন্দকে বহুগুন বাড়িয়ে দিতে পারি একটু সহযোগীতায়।আমাদের সৎ ইচ্ছা শক্তি ও সম্মিলিত উদ্যোগ ঈদের শিক্ষাকে মানবতার জন্য হতে পাওে অনুকরণীয় আদর্শ।

ইসলাম ধর্মের উৎসবগুলো আনন্দের সাথেই ইবাদত হিসেবে পালিত হয়। তেমনি দ্বীর্ঘ একমাস সিয়াম সাধনার পর এই ঈদুল ফিতর বা ঈদের অন্যতম বৈশিষ্ট্য হলো আনন্দকে বিলিয়ে দিতে বেশী-বেশী করে দান-খয়রাত করা । সামর্থবান প্রত্যেক মুসলমান এর উপর ফিতরা আদায় করা অবশ্য কর্তব্য । আর   ঈদুল ফিতর নামটির তাৎপর্যও এখানে।ইসলামের আদর্শ ভ্রাতৃত্ববোধে সকল মানুষ এককাতারে নামাজ আদায়ের সাথেই ধর্মীয় চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে আল্লাহর নিকট পরিপূর্ণ আÍসমর্পনের মাধ্যমে পরিপুর্ণ ঈমানদার হিসেবে জীবন যাপন করবে। বিদ্রোহী কবি কাজী নজরুল ইসলামের সেই অমর গান-“ও মন রমজানের ঐ রোজার শেষে এলো খুশির ঈদ,তুই আপনাকে আজ বিলিয়ে দে শোন আসমানি তাকিদ…” আসলে প্রকৃত ঈদ ভোগে নয় ত্যাগে ।

ত্যাগের মহিমায় নিজেকে মানুষের কল্যাণে বিলিয়ে দিতেই ঈদ এবং এ ত্যাগই রোজার শিক্ষা।ঈদের নামাজের মাঠে আগমনকারীদের উদ্দেশ্যে আল্লাহ বলেন- “বাড়ি যাও আমি তোমাদের মাফ করে দিলাম”। চির মহানের ঘোষিত সেই মহা সুযোগকে কাজে লাগিয়ে আসুন আমরা পবিত্র ঈদুল ফিতরের গুরুত্বকে অনুধাবন করে শুধু উৎসব নয় ইহকালিন শান্তি ও পরকালিন মুক্তির স্বাদ গ্রহনে ব্রতী হই। হিংসা-দ্বেষ ভূলে নিজের জন্য,দেশের ও বিশ্বমুসলিম জাতির  জন্য আল্লাহর কাজে সাহায্য চাই। আমাদের ব্যাক্তি জীবন থেকে শুরু করে জীবনের সকল স্তরে রমজানের শিক্ষা বাস্তবায়িত করি।ঈদের চেতনায় মানবিকতাকে জাগ্রত করে ঈদের আনন্দকে ভাগ করে নিই ভেদাভেদহীন সমাজ গড়ার প্রত্যয়ে সকলের সাথে …। সবাইকে পবিত্র ঈদুল  ফিতরের নির্মল  শুভেচ্ছা-‘ঈদ মোবারক’।

ঈদটা আসে

ঈদটা আসে
সাওয়ালের চাঁদটা ভাসে ঐ
আকাশ জুড়েই
খুশির আমেজ,কেমনে ঘরে রই?

ঈদ আসে ভাই
ঈদের যতো পসরা নিয়ে হাতে
ঈদ আসে তাই
ছেলে-বুড়ো আনন্দে খুব মাতে!

ঈদ আমাদের
সত্য শেখায়,দেখায় আলোর পথ
ঈদ সকলের
থাকুক যতোই ভিন্নতা ও মত।


লাইক এবং শেয়ার করুন
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

আরও অন্যান্য সংবাদ