সিলেটে চলছে ডিজিটাল তীর খেলা

৫৪ বার পঠিত

উদয় জুয়েল : সিলেটে নগরীতে চলছে ভারতের শিলংয়ে জুয়া তীর খেলার মহোৎসব। সারা দেশে ভারতীয় তীর খেলা ডিজিটাল লটারি হিসেবে পরিচিত। সিলেট নগরীর বিভিন্ন হোটেলে চায়ের আড্ডায়ও রাস্তাঘাটে,ছোট বড়,রিকশা চালক থেকে মধ্যবিত্ত এমনকি সমাজের বৃত্তবান লোকের মুখে মুখে এখন ‘তীর খেলা’। এই জুয়ার আসরগুলো নিয়ন্ত্রণ করছেন সিলেটে নগরীর বিভিন্ন পাড়ার প্রভাবশালী ব্যক্তি, ব্যবসায়ীরা এই জুয়াকে কেন্দ্র করে সিলেটে নগরীতে ইতোমধ্যে হামলা-সংঘর্ষের ঘটনা ও ঘটেছে।

জানা যায়, সিলেট নগরীর বালুচর, বড়বাজার, শেখঘাট, মদিনা মার্কেট, বন্দরবাজার, সিলেট জজকোর্ট এলাকা, ছড়ারপার, মাছিমপুর,খাসদবীর,বাদাম বাগিচা, চৌকিদেখী, লাকতুরা,কাষ্টঘর, মহাজনপট্রি, লালদিঘীর পাড়,কাজির বাজার,ঘাসিটুলা,বেতের বাজার,দক্ষিন সূরমা,কদমতলী,বাবনা মোড়,রেল-স্টেশনসহ নগরীর বিভিন্ন স্থানে প্রায় অর্ধশত ‘ডিজিটাল জুয়ার’ আসর বসে থাকে।

ভারতের শিলংয়ে খেলার কেন্দ্রস্থল হলেও সিলেটে রয়েছেন এর অনকে প্রতিনিধি এবং সেই প্রতিনিধির অধীনে সিলেটের বিভিন্ন জায়গায় রয়েছেন এর এজেন্ট । ওই এজেন্টরা সিলেটের বিভিন্ন জায়গায় জুয়ার বোর্ড বসিয়ে মানুষের কাছ থেকে টাকা নেন। টাকা নেওয়ার সময়ে সংশ্লিষ্ট এজেন্টগণ মোবাইলে খুদেবার্তার মাধ্যমে জুয়ার বোর্ডে ধরা টাকার পরিমাণ ও টার্গেট নম্বর দিয়ে থাকেন। জুয়ার আস্তানায় উপস্থিতদের জন্য রেজিস্টার ও টোকেন ব্যবহার করা হয়। এরপর শিলংয়ে জুয়ার ফলাফল হওয়ার পর অনলাইনে সে ফল দেখে বিজয়ীকে টাকা পরিশোধ করা হয়।

ইতিমধ্যে এই খেলার ধ্বংসাত্মক থেকে যুবসমাজকে রক্ষা করতে প্রশাসন কাজ করে যাচ্ছে,প্রতিদিন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে গ্রেফতার হচ্ছে কেউ না কেউ, তবুও যেন থামছেনা তীর নামক ধ্বংসের এই খেলা।৭০ গুন লাভের আশায় সিলেটের তরুণরা পা দিচ্ছে এই পথে এবং একসময় মূলধন হারিয়ে নিঃস্ব হয়ে পথে বসতে হচ্ছে।

তারপরও থেমে নেই কেউ।সচেতনমহলের অভিযোগ তীর খেলা নামক জুয়ার আসরে সর্বস্ব হারিয়ে অনকেই ছিনতাই, খুন, রাহাজানির মত ভয়ংকর অপরাধের সাথে লিপ্ত হচ্ছে,এতে দিনদিন অপরাধপ্রবণতা বেড়ে চলার আশংকা প্রকাশ করেছেন অনেকেই। যুবসমাজকে ভয়ংকর এই রাস্তা থেকে ফেরাতে অনেকেই প্রশাসনের আরো জোড়ালো ভূমিকা রাখার আহবান জানিয়েছেন।

সিলেট সচেতন নাগরিক মনে করেন সমাজে অশান্তি ছাড়িয়ে পড়ার আগে ভারতীয় এ খেলা বাংলাদেশ থেকে নিশ্চিহ্ন করতে হবে,তাহলেই দেশের যুবসমাজ এ ধ্বংসের পথ থেকে রক্ষা পাবে।

জানা যায়, ভারতের শিলং থেকে ওয়েবসাইটের www.teerbelhe.com মাধ্যমে জুয়ার আসরটি (কথিত লটারি) পরিচালনা করা হয়। প্রতিদিন দুইবার বাংলাদেশ সময় সোয়া ৪টা ও সোয়া ৫টায় দুইবার এর ড্র সম্পন্ন হয়। প্রথম ড্র-তে একজন জুয়াড়ি তার খেলার ৭০গুণ বেশি টাকা পান। আর দ্বিতীয় ড্র-তে সে টাকার পরিমাণ থাকে ৫০ গুণ। মাত্র ১০টাকা থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ যে কোনো পরিমাণ টাকা জুয়ার বোর্ডে ধরা যায়। প্রতিদিনকার বিজয়ী জুয়াড়ি ওই দিন রাতেই সে টাকাগুলো পেয়ে যান আর সেই লেনদেন হয় গোপনে নগদে বা মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে।

তীর শিলং জুয়াখেলার বিরুদ্ধে সাম্প্রতিক সময়ে পুলিশি অভিযানে কয়েকটি জুয়ার আস্তানা উচ্ছেদ ও জুয়াড়িদের গ্রেপ্তার করলেও বিভিন্ন জায়গায় পুলিশের যোগসাজশেই এমন খেলা চলার অভিযোগ রয়েছে। আর্থিক উৎকোচের বিনিময়ে অনেক জায়গায় তীর শিলং খেলতে দেওয়ার অভিযোগ করেছেন অনেকেই।

তবে সিলেট এয়ারপোর্ট থানার ওসি মোশারফ হোসেন এমন অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, এসব কথা ভিত্তিহীন। আমি জানিনা এই সব কথা কে বা কারা বলেন। আমার দায়িত্বে থাকা সিলেট এয়ারপোর্ট থানাধীন এলাকাতে এই গুজব সম্পূর্ণ মিথ্যা। আমি খবর পাওয়া মাত্রই অভিযান পরিচালনা করি।”শিলংয়ে অনলাইনের মাধ্যমে অনুষ্টিত জুয়া খেলা তীর সিলেটে সংক্রামক ব্যধির মতো ছড়িয়ে পড়েছে। এই খেলায় মানুষ এতোই আসক্ত হয়েছে যে, একই পরিবারের বাবা-মা ও ছেলে মিলে জুয়ায় বাজি ধরছে। আমরা যেখানেই জুয়ার আসরের খবর পাচ্ছি সেখানেই স্থানীয় লোকজনের সহযোগিতায় অপারেশন চালাচ্ছি।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

শহীদুর রহমান জুয়েল, সিলেট ব্যুরো #

শহীদুর রহমান জুয়েল (উদয় জুয়েল), সিলেট ব্যুরো ০১৭২৩৯১৭৭০৪

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com