আজ মঙ্গলবার, ৪ঠা আশ্বিন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ১৯শে সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং, ২৭শে জিলহজ্জ, ১৪৩৮ হিজরী, শরৎকাল, সময়ঃ বিকাল ৫:৫০ মিনিট | Bangla Font Converter | লাইভ ক্রিকেট

সিলেট ছাত্রদলের জেলা ও মহানগর কমিটি নিয়ে বিভ্রান্তি

সিলেট জেলা ও মহানগর ছাত্রদলের কমিটি নিয়ে চলছে লাড়েলাপ্পা খেলা। সন্ধ্যায় কমিঠি ঘোষনা আর মধ্যরাতে তা স্থগিত। এ যেন প্রকৃতির খেলা “এই রোদ এই বৃষ্টি।, বেশ কিছুদিনের নাতিষুতিষ্ন অাবহাওয়ায় বাধা হয়ে দাড়ায় কমিটি নামক ঘুর্ণীজ্বর, গতকাল অনলাইন নিউজে কমিটি অনুমোদিত হয়েছে বলে মুটোফনে সত্যতা নিশ্চিত করেছেন কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের দপ্তর সম্পাদক অাব্দুস সত্তার পাটুয়ারী, তবুও সিলেটের ছাত্রদলের নেতারা অানুষ্ঠানিকতার অপেক্ষা থাকে, সমস্যা দেখা দেয় শনিবার সন্ধ্যায় কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সভাপতি ও সাধারন সম্পাদক সাক্ষরিত ছাত্রদলের প্যাডে কমিটির কপি দিয়ে নিউজ করে কয়েকটি অনলাইন পত্রিকা, অাবারও শুরু ছাত্রনেতাদের হই-হুল্লুল পদ-পদবী পাওয়া না পাওয়ার দুলাচলে কেউ-কেউ যখন দিশেহারা ঠিক তখনই সিলেট বিভাগ ছাত্রদলের নামে আসে বিবৃতি , সিলেট জেলাওমহানগর ছাত্রদলের কমিটি ভিত্তিহীন ও উদ্দেশ্য প্রনদিত বিভ্রানি না হওয়ার আহবান।

বিবৃতিতে কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককের নাম উল্লেখিত গণমাধ্যম এবং ছাত্রদলের সর্বস্থরের নেতা কর্মীদের গুজব কোন সংবাদে বিভ্রান্ত না হওয়ার কথা ও বলা হয়েছে।

এ ব্যাপারে সিলেট মহানগর ছাত্রদলের সাধারন সম্পাদক অাবু সালেহ লোকমানের সাথে মুঠোফোনে অালাপে তিনি বলেন, বেশ কিছু দিন ধরে কমিটি অনুমোদনের জন্য কেন্দ্রতে জমা দেয়া হয়েছে তবে এখনও কমিটি অনুমোদন হয়েছে কিনা অামার সঠিক জানা নেই।অনুমোদন হলে কেন্দ্র থেকে তা জানানু হবে বলেও তিনি জানান।

তবে সিলেটে উড়ে আসা ছাত্রদলের সাক্ষরিত কমিঠিতে প্রায় ৬০ জন বিদ্রোহী ছাত্রনেতাদের বিভিন্ন পদে নাম রয়েছে বলে জানা গেছে।

এ দিকে জেলা ছাত্রদলের সাংগঠনিকপদ থেকে বাদ পরা এখলাসুর রহমান মুন্না  জানান, কেন্দ্রীয় সংসদ কমিটি ভূল বশত অনুমোদন করেছে,তারা সংশোধন করে তাকে স্ব পদের মর্যাদা দিয়ে অন্য পদে দেয়ার প্রস্তাব করা হয়েছে।তবে তিনি তা মানতে নারাজ বলে তিনি জানান।

এ দিকে সিলেট ছাত্রদলের মাঠ পর্যায়ের কিছু নেতা ( নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক) কমিটি নিয়ে লোকোচুড়ি খেলা কে লারেলাপ্পা আখ্যায়িত করে বলেন, আমাদের নিয়ে কি হুলি খেলা শুরু হয়েছে? আবার কমিটিতে আসা কয়েক জন বলছিলেন বিদ্রোহীদের মিলিয়ে কমিটি হউক আমরা তা চাই কিন্তু তাই বলে কি প্ররিশ্রমি, ত্যাগী, পরিক্ষিত, নেতাদের সঠিক মূল্যায়ন হবে না? যারা বিগত আন্দোলন সংগ্রামে বিন্দু মাত্র অংশ গ্রহন ছিলনা তারা ও আবার কমিটির যুগ্ম সম্পাদকের পদের আসনে বসেছে।এই ভাবে চললে তো ত্যাগী নেতাকর্মীরা রাজনীতি করার আগ্রহ হারাবে আর ক্ষতি গ্রস্থ হবে দল এমনটাই মনে করেন অনেকে।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে
Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com