আট দিন পর ঝিনাইদহের কোর্টে ১১০ পিচ ইয়াবাসহ পাওয়া গেল এনজিও কর্মী রবিকে

৩৮ বার পঠিত

ঝিনাইদহ প্রতিনিধিঃ অবশেষে দীর্ঘ অপেক্ষার অবশান ঘটিয়ে বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায়, নিউজ পোর্টাল, ফেসবুকে সাত দিন ধরে সংবাদ প্রকাশ হওয়ার আট দিন পর খোঁজ মিলেছে এনজিও কর্মী রবির ১১০ পিচ ইয়াবা সহ গ্রেফতার দেখানো হয়। ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুর থানা পুলিশ বুধবার গভির রাত্রে এনজিও কর্মী রবিউল ইসলাম রবিকে ১১০ পিচ ইয়াবা সহ গ্রেফতার করে বৃহস্পতিবার সকালে ঝিনাইদহ জজ কোর্টে চালান করে। পরে মহামান্য আদালত তাকে জামিন না করে থানা হাজতে প্রেরণ করে বলে সাংবাদিককে জানিয়েছেন রবির স্ত্রী কোকিলা ।

উল্লেখ্য, ঝিনাইদহ শহরের পোষ্ট অফিস মোড় এলাকা থেকে সাদা পোশাকে রবিউল ইসলাম রবি নামের এক এনজিও কর্মীকে জেমিনি ফোর্সের কনেস্টেবল ইমরানের মাধ্যমে তুলে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ উঠেছে। রবিউল ইসলামের স্ত্রী কোকিলা আক্তার রানু সাংবাদিকদের এ তথ্য দিয়ে বলেন, রবিউল ইসলাম শহরের চাকলাপাড়ার মৃত লুৎফর বিশ্বাসের ছেলে। গত ৩ নভেম্বর বৃহস্পতিবার রাত ৮ টার দিকে ছোট ভাই শাহিনের সাথে করে মোবাইল কেনার উদ্দেশ্যে ঝিনাইদহ শহরে যান।

ঝিনাইদহ শহরের পোষ্ট অফিস মোড় থেকে ইমরান নামে জেমিনির কনেস্টেবল তাকে ডেকে নিয়ে যাওয়ার সময় রবির সাথে থাকা শাহীন, স্থানীয় দোকানদার ও আশপাশে দাড়িয়ে থাকা লোকজন দেখেছেন বলেও সাংবাদিকদের জানান রবির স্ত্রী কোকিলা আক্তার রানু। রবিকে সেখান থেকে গলির মধ্যে নিয়ে সাদা একটি মাইক্রোবাসে অস্ত্রেও মুখে তুলে নেয় জেমিনি ফোর্সের কনেস্টেবল ইমরান। সেই থেকে আজ অবধি সাত দিন ধরে এনজিও কর্মী রবিউল ইসলাম রবি নিখোঁজ আছেন।

এরপর থেকেই রবি নিখোঁজ রয়েছেন। এ ঘটনায় শনিবার ও মঙ্গলবার সকালে ঝিনাইদহ সদর থানায় রবির স্ত্রী কোকিলা আক্তার রানু জিডি করতে গেলে ডিউটি অফিসার বলেন তিন, চার দিন পরে আসবেন। পরবর্তিতে আবারো মঙ্গলবার সকালে রবির স্ত্রী ঝিনাইদহ সদর থানায় জিডি করতে গেলে ঝিনাইদহ সদর থানার ওসি হরেন্দ্রনাথ সরকার কোকিলা আক্তার রানুর দেওয়া জিডি পত্রটি নিয়ে তার অফিস ড্রয়ারে রেখে দেয় বলে জানিয়েছেন, রবির স্ত্রী কোকিলা আক্তার রানু।

কোকিলা আরো বলেন, ঝিনাইদহ জেলা পুলিশ সুপারের কাছে আমি, আমার কন্যা ও রবির আরো দুই বোন কথা বললে, পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান বিষয়টি দেখবেন বলে আশ্বাস দেন। ঝিনাইদহ সদর থানায় রবি নিখোঁজের জিডি না নিলে আগামি কাল মঙ্গলবার ঝিনাইদহ জর্জকোর্টে রবির স্ত্রী কোকিলা আক্তার রানু মামলা করবেন বলে জানিয়েছেন। এ ব্যাপারে ঝিনাইদহের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আজবাহার আলী শেখ বলেন, রবিউল ইসলাম রবি নিখোঁজের বিষয়টি আমার জানা নেই। তবে খোঁজ খবর নিয়ে পরে জানানো যাবে।

এদিকে ঝিনাইদহ সদর থানার জেমিনি ফোর্সের এস আই আমিনুল ইসলাম বিষয়টি অস্বিকার করে সাংবাদিকদের বলেছেন, ইমরান নামে জেমিনি ফোর্সের কনেস্টেবল আছে-তবে সে কাউকেই ধরেনি। তাছাড়া আমি বিষয়টি জানিনা। আরো উল্লেখ যে, গত বুধবার বিকালে সাদা পোশাকের অস্ত্রধারীরা হরিণাকুন্ডু উপজেলা নির্বাহী অফিসের সার্টিফিকেট সহকারী কাউছার আলীকে তুলে আনেন। পুলিশ প্রথমে অস্বীকার করলেও কর্মচারীদের আন্দোলনের হুমকীতে বুধবার রাতে পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হয় কাউছার তাদের হেফাজতে আছে।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com