বাগেরহাটে অজ্ঞাত রোগে আক্রান্ত শিশু আলিমুন

এই সংবাদ ৮২ বার পঠিত

মোহাম্মদ রাহাদ রাজা,খুলনা বিভাগীয় স্টাফ রিপোর্টারঃ বাগেরহাটের কচুয়া উপজেলার অ অঞ্চলে অজ্ঞাত রোগে আক্রান্ত শিশু আলিমুনের জীবন এখন বিপন্নের পথে। মাথাসহ সারা শরীরে যেন টিউমারের মত বড় বড় চাকা বা ফোড়া। বাড়ি বসে প্রতিনিয়তই সে ধুকছে। স্থানীয় ডাক্তার তার রোগ নির্ণয় করতে পারছে না। অর্থাভাবে  উন্নত চিকিৎসার কথাও ভাবতে পারছে না পরিবার।বাগেরহাট জেলার কচুয়া উপজেলার গজালিয়া ইউনিয়নের সোনা কান্দর  গ্রামের  মৃত আজাহারে আলীর দুই ছেলে। বড় ছেলে মোঃ শুকুর আলী দ্বিতীয় শ্রেণীতে পড়ে। আর ছোট ছেলে আলীমুল ইসলামী ফাউন্ডেশনের সোনা কান্দর শেখ বাড়ি জামে মসজিদ গণশিক্ষা কেন্দ্রের  শিশু শ্রেণীতে পড়ে। ৮ বছরের শিশু আলিমুনের পিতা আজাহার আলীর মৃত্যু হয়েছে আরো ৩ বছর আগে। পিতার মৃত্যুর পর মা ছকিনা দুই শিশু সন্তানকে নিয়ে দিনমজুরের কাজ করে শাশুড়িকে  নিয়ে  গ্রামের এক শতাংশ জমির উপর হোগলার বেড়ার ঘরে বসবাস করে কোন রকম জীবন ধারণ করেন। ফলে মজুর সখিনার পক্ষে ছেলের চিকিৎসা করানো সম্ভব হচ্ছে না।

গণশিক্ষা কার্যক্রমের শিক্ষক  মোঃ জাহিদুল ইসলাম শিশু  ছেলেটির কষ্ট দেখে গত ৩-৪ দিন আগে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তার একটি ছবি পোস্ট করলে বিষয়টি সংবাদকর্মীদের দৃষ্টিতে আসে। সরেজমিনে গিয়ে শিশুটির শিক্ষক ,  দাদী ও  এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে  জানা যায়,  আলীমুনের শরীরে ছোট বেলা থেকেই ছোট ছোট কয়েকটি বিচি দেখা দেয়। সেখান থেকে গত ৩ বছরে তার মাথাসহ শরীরের সব জায়গায় একই ধরনের বড় বড় টিউমারের মত  দেখতে এক অজ্ঞাত রোগ বাসা বেঁধেছে। শিশু আলিমুলের মা ছকিনাকে  বাড়িতে পাওয়া যায়নি, কারণ তাকে তো প্রতিদিন সকালে জীবিকার খোঁজে বের হতে হয়। “কথা হয় আলিমুনের বড় ভাই শিশু শুকুরের সাথে। শুকুর অনেকটা আবেগপ্রবন হয়ে এ প্রতিবেদকের কাছে জানতে চায়, আমার ভাই ভালো হবে তো ও কি আমার মতো বেঁচে থাকবে। আপনারা কি ওরে ডাক্তার দেখাবেন। কথা হয় তার শিক্ষক জাহিদুল ইসলামের সাথে। যে তার জন্য আশির্বাদ হয়ে এসেছে। দীর্ঘ দিন ধরে মসজিদ ভিত্তিক মক্তবে শিক্ষকতা করছেন পল্লী চিকিৎসক জাহিদুল ইসলাম। তিনি অত্যন্ত স্নেহ করেন শিশু আলিমুনকে। স্কুল ব্যাগ কিনে দেওয়াসহ তার সব সময়ই খোঁজ খবর রাখেন।

গত বৃহস্পতিবার জাহিদুল ইসলাম অসহায় আলিমুনের বিরল রোগের চিকিৎসার আবেদন জানিয়ে দু’টি ছবি পোস্ট করেন ফেসবুকে। এরপর স্থানীয় উইপি চেয়ারম্যান নাসিরউদ্দিন গতকাল রবিবার বাগেরহাট সদর হাসপাতালে নিয়ে তাকে ভর্তি করেছেন।

বাগেরহাট সিভিল সার্জন ডাঃ অরুণ চন্দ্র মন্ডল মুঠোফোনে বলেন, “বিষয়টি জানার পর আলিমুনকে সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এখানে  মেডিকেল বোর্ড বসিয়ে চিকিৎসার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।”

 

ফেসবুক থেকে মতামত দিন
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com