লক্ষ্মীপুরে শ্রেষ্ঠ শিক্ষকের বিরুদ্ধে অপপ্রচারের অভিযোগ

৬৮ বার পঠিত

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি: তিন বার বি এস বি ফাউন্ডেশনসহ দুই বার জেলার শ্রেষ্ঠ শিক্ষক ও সরকারি ভাবে মালেশিয়া শিক্ষা সফররত লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার উত্তর মান্দারী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সামছুদ্দিন বাবুলের বিরুদ্ধে মিথ্যা অপপ্রচারে লিপ্ত রয়েছেন একটি কুচক্রীমহল। এনিয়ে শিক্ষক সমাজে দেখা দিয়েছে তীব্র নিন্দার ঝড়।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, সামছুদ্দিন বাবুল উত্তর মান্দারী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক হিসেবে সুনামের সাথে দায়িত্ব পালন করে আসছেন। চাকুরি জীবনে জেলাজুড়ে রয়েছে তার পরিচিতি ও সুনাম। তার সুনাম ক্ষুন্ন করার জন্য একটি কুচক্রিমহল অপপ্রচার চালাচ্ছে বলে অভিযোগ রয়েছে। গত ১৯ এপ্রিল একই বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষিকা ফারহানা সুলতানা যৌন হয়রানির অভিযোগ এনে জেলা প্রশাসকের নিকট একটি আবেদন করেন শিক্ষক বাবুলের বিরুদ্ধে।

ওই বিদ্যালয়ে কর্মরত শিক্ষক-শিক্ষিকাদের সাথে আলাপকালে তারা জানান, প্রধান শিক্ষক সামছুদ্দিন বাবুলের বিরুদ্ধে চরিত্র সম্পর্কে আনীত অভিযোগ অত্যান্ত দুঃখজনক। আমরা দীর্ঘদিন যাবত একই বিদ্যালয়ে কর্মরত অবস্থা প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে আপত্তিজনক কোন আচরণ শুনিনাই এবং দেখি নাই। শুধু প্রধান শিক্ষক নয় এখানে বিদ্যালয়ের সুনাম নষ্ট করার জন্য কতিপয় স্বার্থন্বেষীমহল উঠে পড়ে লেগেছে।

শিক্ষক সামছুদ্দিন বাবুল জানান, দীর্ঘ ১৭ বছর যাবত শিক্ষকতার মত মহান পেশায় দক্ষতা ও সুনামের সাথে দায়িত্ব পালন করে আসছেন। ২০১০ সালে ফারহানা সুলতানা নামে এক শিক্ষিকা উপজেলার উত্তর মান্দারী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারি শিক্ষক হিসেবে যোগদান করেন। ২০১৭ সালে তিনি (ফারহানা) নীতিমালা পরিপন্থী বদলীর আবেদন করেন। সেখানে আবেদন নামঞ্জুর হওয়ায় পরে মকরধ্বজ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক আনোয়ার হোসেনের সাথে আপোষ বদলীর জন্য সুপারিশ করতে বললে নীতিমালা বর্হিভূত হওয়ায় তিনি (প্রধান শিক্ষক) অপারগতা প্রকাশ করেন। তিনি আরো বলেন, দীর্ঘ সাত বছর ফারহানা অত্র বিদ্যালয়ে চাকুরী করা অবস্থায় কোন অভিযোগ না করে বদলীজনিত কারনে আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা- বানোয়াট ও উদ্যেশ্য প্রণোদিত ভাবে নিজ স্বার্থ হাছিল করার জন্য অপপ্রচারে লিপ্ত হয়েছেন।

এদিকে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত থাকার অভিযোগ শিক্ষক আনোয়ার হোসেনের বিরুদ্ধে এর আগে একাধিকবার সদর উপজেলা শিক্ষা অফিসার নিকট অভিযোগ রয়েছে। এনিয়ে জাতীয় ও স্থানীয় পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশ করা হয়। যা শিক্ষক সমাজের জন্য কলঙ্কের। এমন লোকের ছত্রছায়ায় একজন প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে এ অভিযোগটি নিয়ে শিক্ষক সমাজ লজ্জিত। উক্ত বিষয়টি যথাযত তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট দাবী জানিয়েছে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

কিশোর কুমার দত্ত, লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি #

কিশোর কুমার দত্ত, লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি। মোবাইলঃ 01714-953963, ইমেইলঃ kkumar3700@gmail.com

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com