ভালুকায় মিল ফ্যাক্টরীর বিষাক্ত কেমিক্যালে বোরো ফসল পঁচে দূর্গন্ধ ছড়াচ্ছে

৮১ বার পঠিত

আবুল বাশার শেখ, ময়মনসিংহ প্রতিনিধিঃ ময়মনসিংহের ভালুকায় চৈত্রের অকাল বৃষ্টি ও রাবার ড্যাম গুলো অচল থাকায় উপজেলার ৮০০ হেষ্টর জমি পানিতে নিমজ্জিত হয়ে ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। এখন পানি চলে যাওয়ায় ধানের চারা গুলো পঁচে দূর্গন্ধ ছড়াচ্ছে। সবচেয়ে বেশী ক্ষতিগ্রস্থ এলাকা মেদুয়ারী ইউনিয়নের পানিভান্ডা, সোয়াইল, বাইন্ধা ও নিঝুরী এলাকায় শত শত একর বোরো জমির ধানের গাছ নষ্ট হয়ে পঁচা পানির গন্ধে এলাকাতেই থাকা দায় হয়ে গেছে।

সংশ্লিষ্টসূত্র জানায়, দূর্গন্ধ ছড়ানোর অন্যতম কারণ হচ্ছে ভালুকার গার্মেন্স, সোয়েটার, টেক্্রটাইল মিলের বিষাক্ত পানি গুলো খিরু নদীতে ছেড়ে দিচ্ছে। এসব ফ্যাক্টরীর বর্জ্য পরিশোধনাগার “ইফ্লুয়েন্ট টিটমেন্ট প্লান্ট ”(ইটিপি) ব্যবহার না করেই নদীতে সরাসরি পানি ছেড়ে দিচ্ছে তাই নদীর এই বিষাক্ত কেমিক্যাল মিশ্রিত পানি ও বৃষ্টির পানি একাকার হয়ে বোরো ধান নিমজ্জিত হওয়ায় পানি চলে গেলেও ধানের চারা গুলো মরা অবস্থা আছে। এখন লাল বর্ণ হয়ে মাটিতে লুটিয়ে পরছে ধানের চারা গুলো। প্রতিটি ক্ষেতে গেলে দেখা যায় কালো বিবর্ণ পানি গুলো গন্ধ ছরাচ্ছে। এখন ধানের ক্ষতির পাশাপাশি পরিবেশও  হুমকির মুখে, ছড়াতে পারে ডায়রিয়া সহ মহামারী রোগ।

সোয়াইল গ্রামের কৃষক ও ইউপি সদস্য শাহজাহান মিয়া জানান, পানি ২দিন পরই চলে গেল। কিন্তু আমাদের ফসল রক্ষা হলো না? মিলের বিষাক্ত পানির জন্য। কল কারখানার এই বিষাক্ত পানি আমাদের জমিতে না এলে রক্ষা পেত আমাদের এই ফসল। এইসব বিষাক্ত কেমিক্যাল মিশ্রিত পানির জন্য বিলের মাছগুলো মরে পানিতে ভেসে উঠছে। আমার ৩একর জমি সহ তিনটি বিলের শত শত একর বোরো ফসল নষ্ট হয়ে এখন দূর্গন্ধ ছড়াচ্ছে। ময়মনসিংহ পরিবেশ অধিদপ্তরের উপ পরিচালক মোঃ নূর আলম জানান, ভালুকায় প্রায় সবগুলো ফ্যাক্টরীতে (ইটিপি) করা আছে। কিন্তু এগুলো তারা চালায় কিনা তা মনিটরিং করে দেখতে হবে। সম্ভবত তারা দিনে চালায় আর রাত্রে বন্ধ রাখে। এই জন্যই এই রকম হতে পারে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোরারজী দেশাই বর্মন জানান, আমি খিরু নদী পরিদর্শন করে দেখে এসেই এই ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নিবো।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com