১০বছর প্রেমের সম্পর্ক

বগুড়ায় প্রেমিকের বাড়ীতে বিষের বোতল হাতে গোলাপীর অনশন

২০০ বার পঠিত

হাফিজুর রহমান, বগুড়া আবু জাহের, শেরপুর :

প্রতারনার ভালোবাসার ফাঁদে গোলাপী। বিয়ের প্রলোভন দিয়ে দৈহিক সম্পর্ক করেও কথা রাখেনি প্রতারক প্রেমিক। দীর্ঘদিন ধরে প্রেমের সম্পর্ক করে বিয়ে না করায় শেষতক বিষের বোতল হাতে নিয়ে প্রেমিকের বাড়িতে ঘরের দরজার সামনে বিয়ের দাবীতে অবস্থান অনশন করছে প্রেমিকা গোলাপী খাতুন। ঘটনাটি ঘটেছে বগুড়ার শেরপুর উপজেলার গাড়িদহ ইউনিয়নের ছোট ফুলবাড়ী গ্রামে। বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই অনশন করছে গোলাপী। এরিপোর্ট লেখা পর্যন্ত স্থানীয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে কোন আইনী ব্যবস্থা নিতে দেখা যায়নি। বিয়ে করতে অস্বীকার করে বাড়ি থেকে পালিয়েছে প্রেমিক ও পরিবার।

সরেজমিনে গিয়ে এলাকাবাসি সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার ছোট ফুলবাড়ী গ্রামের পল্লী চিকিৎসক নুরুল ইসলামের ছেলে শাহাদত হোসেন নাছিমের সাথে একই গ্রামের প্রতিবেশী গাজীউর রহমানের মেয়ে গোপালী খাতুনের প্রায় ১০বছর ধরে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে।
সেই সুবাদে প্রতারক প্রেমিক শাহাদত হোসেন নাছিম বিয়ের প্রলোভন দিয়ে প্রেমিকা গোলাপী খাতুনের সাথে দৈহিক সম্পর্ক করে আসছে দীর্ঘদিন ধরেই। তাদের প্রেমের বিষয়টি লোকমূলে জানাজানি হলে মেয়ের পরিবার থেকে প্রেমিক নাছিমের পরিবারে বিয়ের প্রস্তাব দেয়। এর কিছুদিন পর থেকেই হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়ে গোলাপী।

গোলাপী খাতুনের সাথে কথা বললে সে জানায়, প্রেমিকের পিতা নুরুল ইসলাম পল্লী চিকিৎসক হওয়ায় গোলাপীর চিকিৎসার দায়ভার নেয় প্রেমিক নাছিম। পরে ওই প্রতারক কৌশলে চিকিৎসার নামে অপচিকিৎসা দিয়ে গোলাপীকে স্বাস্থ্যবতী করার জন্য ঔষধ খাওয়ালে সে ধীরে ধীরে  নিস্তেজ হয়ে পড়ে। গোলাপী জানিয়েছে, ২০০৬ সাল থেকে নাছিমের সাথে প্রেমের সম্পর্ক। সেই সুবাদে নাছিম তার সাথে দৈহিক সম্পর্কও করেছে দীর্ঘদিন। তাকে (গোলাপী) চট্রগ্রাম একটি নার্সিং কলেজে পড়া লেখা অবস্থায় প্রেমিক নাছিম নানা উপহার সামগ্রীও গোলাপীকে দিয়েছে। গোলাপীর মা বুলি খাতুন জানান, গোলাপীকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নিয়ে গেলে তার দুটো কিডনী নষ্ট হয়েছে বলে জানিয়ে দিয়েছে ডাক্তারেরা। গোলাপীর কিডনী প্রতিস্থাপনের জন্য মা বুলি খাতুন একটি কিডনী দান করেন। যাবতীয় চিকিৎসার জন্য গোলাপীর পরিবার জমি বিক্রি করে নগদ ১৬লাখ টাকা প্রতারক প্রেমিক নাছিমের হাতে তুলে দিয়েছেন বলে অভিযোগ করে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন বুলী খাতুন। গোলাপীর মা আরও বলেন, গোলাপী সুস্থ্য হয়ে বাড়ী ফিরে প্রেমিক নাছিম ও তার পরিবারকে পুনরায় বিয়ের কথা বলে। প্রতারক প্রেমিক শাহাদত হোসেন নাছিম বিয়ে করবে না বলে গোলাপীর সাথে সম্পর্কের কথা অস্বীকার করে।

গোলাপীর পরিবারের অভিযোগ, বিয়ের দাবী অস্বীকার করার পর চলতি মাসের ৮জানুয়ারি শেরপুর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করলে প্রশাসনের পক্ষ থেকে কোন আইনী ব্যবস্থা গ্রহন করেনি। গোলাপী এখন বিচারের দাবীতে বিষের বোতল হাতে নিয়ে প্রেমিকের বাড়ীতে অবস্থান করছে। মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে প্রেমিক নাছিম বা তার পরিবারের কেনো সদস্যদের পাওয়া যায়নি।
এপ্রসঙ্গে শেরপুর থানার ওসি খান এরফান বলেন, বিয়ে করিয়ে দেয়ার দ্বায়িত্ব পুলিশের নয়। তবে অভিযোগ সাপেক্ষে সরেজমিনে গিয়ে বিষয়টি তদন্ত করে আইনী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

স্টাফ রিপোর্টার

Bogra Offce

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com