মালামাল উদ্ধার : মাইক্রোবাস আটক

বোমা ফাটিয়ে স্বর্ণালংকার ডাকাতি : পুলিশের গুলি, ডাকাত সহ আহত ৫

১০২ বার পঠিত

হাফিজুর রহমান হাফিজ, বগুড়া:

বগুড়া শহরের প্রানকেন্দ্র সাতমাথা এলাকার আল হাসান জুয়েলার্স স্বর্নের দোকানে ফিল্ম ষ্টাইলে দুর্ধর্স ডাকাতি সংঘটিত হয়েছে ।

স্বরনকালের এই ডাকাতির ঘটনায় গুলি ছুঁড়ে মূহ মূহ বোমা ফাটিয়ে লুটে নেয় শত শত ভরির স্বর্নালংকার এবং নগদ অর্থ । ডাকাতের গুলিতে দোকান মালিক সহ ককটেলের আঘাতে আহত হয়েছেন কমপক্ষে ৪জন।
জানা গেছে ,শনিবার সন্ধ্যা আনুমানিক পোনে ৭টার দিকে বগুড়ার শহরের ব্যস্ততম এলাকা নিউ মার্কেট এলাকার আল হাসান জুয়েলার্স নামের একটি স্বর্নের দোকানে হঠাতই এসে চড়াও হয় সংঘবদ্ধ ডাকাত দলের ৮/৯জন সশস্ত্র সদস্য।

সাদা রংয়ের একটিহাইচ মাইক্রোবাসে আসা মুখোশধারী ডাকাতরা দোকানের সামনে মাইক্রো থামিয়ে আকস্মিক ভাবে দোকানে ঢুকে পড়ে । কোন কিছু বুঝে ওঠার আগে তারা সিনেমা কায়দায় অস্ত্র উঁচিয়ে দোকানে থাকা মালিক কর্মচারীদের জিম্মি করে স্বর্নালংকার লুটে নিতে থাকে ।

এসময় দোকান মালিক চিৎকার শুরু করলে ডাকাতরা দোকান মালিকের পায়ে পিস্তল দিয়ে গুলি করে । পরে ডাকাতদের কয়েকজন আশপাশে গুলি ছুড়ে ও বোমা ফাটিয়ে সন্ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করে এলাকায় ভীতির সঞ্চার করে।

বোমার শব্দের ভয়াবহতায় শহরের আতংকিত লোকজন নিরাপদ আশ্রয়ে পালিয়ে যেতে থাকে।

মুহুর্তের মধ্যে বন্ধ হয়ে যায় আশপাশের দোকান পাট , ব্যাবসা প্রতিষ্ঠান । ডাকাতদের শক্তিশালী বোমার আঘাতে উড়ে যায় রাস্তার পাশে পার্কিং করে রাখা ১টি মোটর সাইকেল।
 ডাকাতরা  গোটা জুয়েলার্স লুট করে সিনেমা ষ্টাইলে গুলি ছুঁড়ে ও প্রায় ৩০টির মত বোমা ফাটিয়ে পালিয়ে যায় ।

এলাকাবাসী ও ব্যবসায়ীরা সাংবাদিকদের কোছে অভিযোগ করে বলেন, ঘটনার সময় আশ পাশে পুলিশ থাকলেও তারা কেউ এগিয়ে আসেননি। ঘটনায় প্রায় ৩০মিনিট পর পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছার আগেই সংগে আনা মাইক্রোবাসে করে নির্বিঘ্নে পালিয়ে যেতে সক্ষম হয় ডাকাতদল।
এদিকে ঠিক কত ভরি স্বন্র্ালংকার এবং নগদ টাকা লুট হয়েছে তা বিস্তারিত ভাবে জানা যায়নি।

দোকান মালিক গুলজার আহম্মেদ , দোকান কর্মচারী, পথচারী সহ কমপক্ষে ৪জন আহতকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
অপর দিকে, শেষ খবর পর্যন্ত ঘটনার প্রায় পোনে এক ঘন্টা পর বগুড়া থেকে ১০ কিঃ মি দুরে বগুড়া- ঢাকা মহাসড়কের ৯মাইল নামকস্থানে একটি মাইক্রোবাস আরোহীদের সাথে পুলিশের বন্দুক যুদ্ধের খবর পাওয়া গেছে, এসময় পুলিশের গুলিতে আহত আলমগীর হোসেন(৪০)নামের এক ডাকাতকে গ্রেপ্তার কথা জানিয়েছে পুলিশ । আটক আলমগীর পাবনা আতাইকোলা উপজেলার কাজীপুর গ্রামের টুকু লস্করের পুত্র বলে পুলিশ জানায় ।তাকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তার অবস্থা আশংকাজনক বলে হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে।

 

ডাকাতি ঘটনার প্রেসব্রিফিং করেন বগুড়ার পুলিশ সুপার মো. আসাদুজ্জামান

জেলা পুলিশ সদরের এএসপি আনোয়ার হোসেন ডাকতি কাজে ব্যবহৃত মাইক্রোবাসটি আটকের দাবী করে বলেন, ডাকাতি ঘটনার পর পালিয়ে যাবার সময় পুলিশের একটি টহলগাড়ী পেছন থেকে ওই মাইক্রোটিকে ধাওয়া করছিল । এ সময় ওই মাইক্রো থেকে পুলিশকে লক্ষ করে গুলি বর্ষন ও বেশ কয়েকটি বোমার বিস্ফোরন ঘটানো হয় । পরে উল্লেখিত স্থানে স্থানীয় জনতা ও অপর একটি পুলিশ দল রাস্তায় ব্যারিকেড দিয়ে মাইক্রোর গতীরোধের চেষ্টা করে । এসময় ডাকাতরা তাদের মাইক্রো ফেলে পালিয়ে যাবার সময় আলমগীর পুলিশের গুলিতে আহত অবস্থায়আটক হয় ।এ সময় উদ্ধার হয় লুন্ঠিত  স্বর্নালংকার-এবং বিপুল সংখ্যক ককটেল পাওয়া যায় মাইক্রোর ভেতর – ডাকাতদের অস্ত্রসশস্ত্র উদ্ধার হয়েছে কিনা তা নিশ্চিত করা হয়নি।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

স্টাফ রিপোর্টার

Bogra Offce

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com