ঝালকাঠির বন্যা পরিস্থিতি জোয়ারে প্লাবন, ভাটায় ভাঙন, সাগরে নিম্মচাপ।

এই সংবাদ ৫৩ বার পঠিত

অহিদ সাইফুল,ঝালকাঠি সংবাদদাতাঃ ঝালকাঠিতে বন্যার পানি কমতে শুরু করেছে তবে বর্তমানে সাগরে দেখা দেওয়া নি¤œচাপের প্রভাবে পরিস্থিতির আবারো অবনতি হতে শুরু করেছে। সুগন্ধা, বিষখালী ও জাঙ্গালীয়া নদীর পানি কমলেও তিব্র আকার ধারন করেছে নদী ভাঙন। সম্প্রতি সাগরে নি¤œচাপের প্রভাবে ভারি বৃষ্টিপাত অব্যাহত রয়েছে। আবহাওয়া অধিদপ্তর উপকূলীয় এলাকায় ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত দিয়েছে। তাই নদীর পানি কমতে শুরু করলেও দুর্ভোগ কমছেনা সাধারন মানুষের। নদী তীরবর্তী জনসাধারনকে ইতোমধ্যেই প্রশাসনের পক্ষ থেকে সতর্ক করে দেওয়া হয়েছে। নিন্মচাপের প্রভাবে সদ্য বন্যায় কমে যাওয়া পানি আবারো বৃদ্ধি পেতে পারে বলে পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্তপক্ষ জানিয়েছে। নদীতে পানি কমলেও এখনো প্রবল সোত বইছে।
এছাড়া আটকে যাওয়া পানির কারনে দুর্ভোগে রয়েছে নিম্মঞ্চলের প্রায় দুই হাজার পরিবার। জলাবদ্ধতায় দুর্গত এলাকায় দেখা দিয়েছে পানিবাহিত রোগ। এসব এলাকায়  বিশুদ্ধ পানির অভাবে শিশু থেকে শুরু করে বৃদ্ধরা আক্রান্ত হচ্ছেন জ্বর, সর্দি-কাশি, নিউমোনিয়া, ডায়রিয়া ও  চর্মরোগে। আক্রান্ত অনেকেই চিকিৎসা নিচ্ছেন স্বাস্থ্য সেবাকেন্দ্রোগুলোতে। এদের মধ্যে বেশির ভাগই ডায়রিয়ায় আক্রান্ত বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন। জেলার চার উপজেলায় স্বাস্থ্যকেন্দ্রগুলোতে শিশুদের ভীড় বেশি লক্ষ্য করা গেছে তার মধ্যে অধিকাংশই শিশু।
ঝালকাঠি সদর হাসপাতালের চিকিৎসক মেহেদী হাসান সাগর জানান, জলাবদ্ধতায় পানিবাহিত রোগ বৃদ্ধি পেয়েছে। তাই আক্রান্ত হওয়ার সাথে সাথেই হাসপাতালে এসে চিকিৎসকের পরামর্শ নেয়ার জন্য অনুরোধ করছেন। এছাড়া ঘরের পাশে ও রাস্তায় জমে থাকা পানিতে না নামা ও বিশুদ্ধ পানি পান করার জন্য পরামর্শ দিয়েছেন চিকিৎসকরা।
অপরদিকে স্বাভাবিক জোয়ারের চেয়ে এখনো পানির উচ্চতা বেশি থাকায় জোয়ারে নি¤œাঞ্চল প্লাবিত হচ্ছে এবং ভাটার সময় ¯্রােতের শক্তি বেশী থাকায় তিব্র নদী ভাঙন শুরু হয়েছে বিষখালী নদীর বিভিন্ন স্থানে। এতে আশ্রয়হীন হয়ে পড়েছে অর্ধশতাধিক বন্যা ও ভাঙন দুর্গত পরিবার। তারা অন্যত্র উচু স্থান ও স্বজনদের কাছে আশ্রয় নিয়েছে বলে জানাগেছে।
সম্প্রতি ভাঙনের শিকাড় বিষখালী নদী তিরবর্তী বাসিন্দা মোছলেম আলী হাওলাদার জানান, “বন্যার কারনে ধানের ক্ষেত ও বীজ আগেই ধংস হয়ে গেছে। এখন ভাঙনে বসত ভিটাও নদী পেটে। কিভাবে আগামীদিন স্ত্রী সন্তান নিয়ে বাঁচব তা আল্লাহ্ই ভাল জানেন”
বিষখালী নদীতে ভাঙন দূর্গতদের সম্পর্কে জানতে চাইলে রাজাপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এবিএম সাদিকুর রহমান জানান, বন্যা পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক হলেও বর্তমানে সাগরে নি¤œচাপ সৃষ্টি হওয়ার কারনে গত ৪৮ ঘন্টা টানা ভারি বৃষ্টিপাতের কারনে দূর্গত মানুষ চরম ভোগান্তিতে পড়েছে। তবে আমরা আমাদের সাধ্যমতো দূর্গতদের পাশে থাকার চেষ্টা করছি।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

অাহিদ সাইফুল ঝালকাঠি প্রতিনিধি #

অাহিদ সাইফুল ঝালকাঠি প্রতিনিধি # মোবাইল নাম্বারঃ +৮৮০১৭১৬৬৩৫৪৭৩

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com