ঝালকাঠির প্রশাসন সোচ্চার, বিভিন্ন স্থানে ৪ বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ ও ৪ জনকে সাজা প্রদান

৪০ বার পঠিত

ঝালকাঠি সংবাদদাতা ঃ ঝালকাঠির কাঠালিয়ায় শুক্রবার রাতে পৃথক ভ্রাম্যমান আদালত বসিয়ে ৩ টি ও শনিবার দুপুরে ১টি বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ সহ ৪ জনকে বিভিন্ন  মেয়াদে সাজা প্রদান করা হয়েছে। কাঠালিয়ায় ভ্রাম্যমাণ আদালতে বাল্য বিয়ের অভিযোগের দুই স্কুল ছাত্রীর দাদা ও মামাকে পাঁচ শত টাকা করে অর্থদন্ড প্রদান করা হয়েছে। শুক্রবার রাত ৯টায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার, নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ডাঃ শরীফ মুহম্মদ ফয়েজুল আলম এর ভ্রাম্যমাণ আদালত এ দন্ডাদেশ প্রদান করেন।
     জানাগেছে, শাহীন সরদারের কন্যা আমুয়া বালিকা উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ৯ম শ্রেণিতে পড়ুয়া ছাত্রী লাবনী আক্তারকে প্রতিবেশী এলাহী সরদারের সাথে বিবাহ অনুষ্ঠানের প্রাক্কালে ভ্রাম্যমান আদালত অভিযান চালালে বেআইনী বিবাহ অনুষ্ঠান পন্ড হয়ে যায়। বাল্যবিবাহের উদ্যোগে সহায়তার জন্য ঘটনাস্থল থেকে আটককৃত লাবনীর মামা মাইন উদ্দীন-কে বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ আইনের ৬ ধারায় ৫শ টাকা জরিমানা অনাদায়ে ৩ দিনের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করা হয়। অন্যদিকে একই এলাকার মাসুদ সরদারের কন্যা আমুয়া বালিকা উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ৭ম শ্রেণির ছাত্রী সোহাগী আক্তারকে ছোনাউটা গ্রামের শাহজাহানের ছেলে শামীমের সাথে বিয়ে সম্পাদনে সহযোগিতার অভিযোগে কিশোরীর দাদা মোঃ আবু তালেব সরদারকেও আইনের ৬ ধারায় ৫শ টাকা জরিমানা অনাদায়ে ৩ দিনের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করা হয়। ভ্রাম্যমান আদালত উপস্থিতির খবর পেয়ে নাবালিকা কন্যা ও বরের পিতা-মাতারা আত্মগোপন করেন। এসময় স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়াম্যান মোঃ আমীরুল ইসলামসহ তিনজনকে স্বাক্ষী রেখে আটককৃতদের নিকট থেকে ৩০০ টাকা করে নন-জুডিশিয়াল স্ট্যাম্পে বাল্যবিবাহ না দেয়ার অঙ্গীকারনামাসহ মুচলেকা গ্রহণ ও তাৎক্ষণিকভাবে জরিমানার টাকা আদায় করেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।
এদিকে শুক্রবার রাতে নলছিটির প্রতাপ গ্রামে ঝালকাঠি সরকারি মহিলা কলেজের একাদশ শ্রেণির এক ছাত্রীর বিয়ের আয়োজনের দায়ে কণ্যার চাচা ও বরের বড় ভাইকে ভ্রাম্যমান আদালত এক হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়েছে। বিয়ে আয়োজনের অভিযোগ পেয়ে ঝালকাঠি জেলা প্রশাসক মো. মিজানুল হক চৌধুরীর নির্দেশে নলছিটি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহ মোঃ কামরুল হুদার নেতৃত্বে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান পরিচালিত হয়। এ সময় আর্থিক দন্ড ছাড়াও বিয়ে বাড়িতে আগত আত্মীয়-স্বজন ও আমন্ত্রিত অতিথিদের বাল্য বিয়ের কুফল সম্পর্কে অবহিত করেন এবং বর-কনে উভয় পক্ষের লিখিত অঙ্গীকার গ্রহন করেন ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারক শাহ মোঃ কামরুল হুদা ।
এছাড়া শনিবার দুপুরে কাঠালিয়া উপজেলার আমুয়া ছোনাউটা গ্রামের বেগম চাঁদ মিয়া বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেণির ছাত্রী আরমিন আক্তার (১৫) কে আমুয়া গ্রামের শাহজাহান হাওলাদারের দক্ষিন আফ্রিকা প্রবাসী পুত্র সবুজ হাওলাদার (২৭) এর সাথে বিবাহের উদ্যোগ নেয়। সংবাদ পেয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ডাঃ শরীফ মুহম্মদ ফয়েজুল আলম পুলিশের সহায়তায় মেয়ের মা রুমা আক্তার সহ মেয়ে, নানা আবদুস সাত্তার ও মামা মনিরুজ্জামান হাওলাদার-কে উপজেলায় নিয়ে আসেন। বাল্যবিবাহ না দেওয়ার বিষয়ে তাদের কঠোর সতর্ক ও নন-জুডিশিয়াল স্ট্যাম্পে বাল্যবিবাহ বিরোধী মুচলেকা অঙ্গীকারনামা রেখে তাদেরকে ছেড়ে দেন।#BALLO BEA PIC

ফেসবুক থেকে মতামত দিন
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

অাহিদ সাইফুল ঝালকাঠি প্রতিনিধি #

অাহিদ সাইফুল ঝালকাঠি প্রতিনিধি # মোবাইল নাম্বারঃ +৮৮০১৭১৬৬৩৫৪৭৩

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com