বিনা বেতনে শিক্ষকতার ১৪ বছর !

২৬ বার পঠিত

সফিউল্লাহ আনসারী ময়মনসিংহ প্রতিনিধি: ময়মনসিংহ জেলার ভালুকা উপজেলার নব্য শিল্পাঞ্চল খ্যাত হবিরবাড়ী ইউনিয়নের আমতলি এলাকায়, ঢাকা ময়মনসিংহ মহাসড়কের পাশে প্রতিষ্ঠিত অবহেলিত, নন-এমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হবিরবাড়ী আমতলি সাবিহা সুলতানা দাখিল মাদরাসা।

মহাসড়কের পাশে থাকলেও এই প্রতিষ্ঠানটি শুরুর আগে অধিকাংশ মানুষ ছিলেন শিক্ষার আলো থেকে বঞ্চিত।প্রতিষ্ঠানটি প্রতিষ্ঠা হওয়ায় ক্রমেই বাড়ছে শিক্ষার হার।সরকারি বা বেসরকারি কোনো প্রতিষ্ঠানের কাছে ধরনা না দিয়ে নিরক্ষরদের মাঝে শিক্ষার আলো জ্বালাতে ওই সময়ের গৌরিপুরের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এই স্থানে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত স্রীর নামে তারঁ ও স্থানীয়দের উদ্যোগে ২০০৩ সালে স্থানীয় দাতাদের দেয়া জায়গায় গড়ে তোলেন হবিরবাড়ী আমতলি সাবিহা সুলতানা দাখিল মাদরাসাটি। নিয়মিত পাঠদান,খেলাধুলা,সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানসহ সরকারি সকল নিয়ম পালন করে মাদরাসাটি এমপিওভুক্ত প্রতিষ্ঠানের মতোই সচল। অথচ শিক্ষার্থীদের পাঠদান করেও বিনা বেতনে শিক্ষকদের জীবন অচল।

বিগত বছরগুলোতে ভালো রেজাল্ট করেও প্রতিষ্ঠার পর থেকে অদ্যাবধি প্রতিষ্ঠানটির ভাগ্যে জোটেনি সরকারি বা বেসরকারি উল্লেখযোগ্য অনুদান। কিংবা ভাগ্যহত শিক্ষকদের ভাগ্যে জোটেনি এমপিও নামক সোনার হরিনের দেখা। শিক্ষদের বেতন-ভাতা না থাকায়, অনেক শিক্ষক জীবিকার তাকিদের অন্যত্র চলে যাওয়ায় রয়েছে শিক্ষক সংকট, জরাজীর্ণ ভবন, চেয়ার-টেবিলের অভাব, বেঞ্চ, আসবাবপত্র, খেলার মাঠসহ নানাবিধ সংকটে ব্যাহত হচ্ছে প্রতিষ্ঠানটির পাঠদান । প্রতিষ্ঠানটির পাঠদান, একাডোমিক অনুমোদন থাকলেও বিনা বেতনে ১৪ বছর পার করে ভাগ্য বিড়ম্বিত নন-এমপিও শিক্ষকগন চরম অবহেলায় কষ্ট ও দৈন্যতায় দিনাতিপাত করছেন।

প্রতিষ্ঠানের সহকারী শিক্ষক জলিলুর রহমান জানান, হবিরবাড়ী আমতলি সাবিহা সুলতানা দাখিল মাদরাসাটি বর্তমান যুগ্ন সচিব শেখ আলমগীর হোসেন ২০০৩ সালে তাঁর স্রীর নামে প্রতিষ্ঠা করেন। এলাকাটিতে আনেক শিল্প-কারখানা থাকায় শিক্ষার্থীর পদভারে মুখরিত এই প্রতিষ্ঠানটি এমপিও ভুক্ত না হওয়ায় শিক্ষার্থী ঝরে পড়াসহ শিক্ষকদের জীবন দুর্বিসহ হয়ে উঠছে।

প্রতিষ্ঠানটি থেকে প্রাথমিক সমাপনি পরীক্ষা,জেডিসি পরীক্ষা ও দাখিল পরীক্ষায় প্রতি বছর আশানুরুপ ফলাফল নিয়ে শিক্ষার্থীরা পাস করে কলেজে অধ্যায়ন করে নজরুল ইউনিভার্সিটিসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে লেখাপড়া করে তাদের জীবন গড়ছে অথচ নন-এমপিও শিক্ষকগণ এমপিওর আশায় নষ্ট করছেন তাদের জীবন। হবিরবাড়ী আমতলি সাবিহা সুলতানা দাখিল মাদরাসার সুপার মাও: তাজুল ইসলাম বলেন-বিনা বেতনে শিক্ষকদের ধরে রাখা কষ্ট হয়ে যাচ্ছে,সরকার আমাদের নন-এমপিও শিক্ষদের দ্রুত এমপিওর ব্যাবস্থা করলে উপকৃত হতাম।

ওই প্রতিষ্ঠানের নাম প্রকাশে এক শিক্ষক বলেন-এমপিও না থাকায় সামাজিক অবজ্ঞার শিকার হতে হচ্ছে আমাদেরকে।অবমূলায়িত হতে হতে আর সহ্য হচ্ছেনা এই জীবন-বললেন আরেক শিক্ষিকা। প্রতিষ্ঠানটি বাঁিচয়ে রাখতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সুদৃষ্টি কামনা করে, অন্যান্য শিক্ষকগণ এমপিওভুক্তির জোড় দাবী জানান।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সফিউল্লাহ আনসারী নববার্তা ষ্টাফ রিপোর্টার

আজো চেনা হরোনা নিজেকেই ...! 01715-787772

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com