গ্রাম্য সালিশে অবশেষে দুই স্ত্রীকে মেনে নিলেন প্রবাসী

১৪ বার পঠিত

অপূর্ব লাল সরকার, আগৈলঝাড়া (বরিশাল) # নানা নাটকীয়তার পর অবশেষে শনিবার রাতে গ্রাম্য সালিশ বৈঠকে দুই স্ত্রীকেই মেনে নিয়েছেন প্রবাসী যুবক সুমন হাওলাদার (৩৫)। ঘটনাটি ঘটেছে বরিশাল জেলার আগৈলঝাড়ার রাজিহার ইউনিয়নের মাগুরা গ্রামে। সালিশ বৈঠক সূত্রে জানা গেছে, ওই গ্রামের নুর মোহাম্মদ হাওলাদারের পুত্র মালয়েশিয়া প্রবাসী সুমন হাওলাদার ৯ বছর পূর্বে একই এলাকার ছত্তার বেপারীর কন্যা রাবেয়াকে সামাজিকভাবে বিয়ে করেন।

দাম্পত্য জীবনে তাদের সিয়াম নামের ৭ বছরের এক পুত্রসন্তান রয়েছে। গত ৫ বছর পূর্বে কাজের সুবাদে সুমন মালয়েশিয়া যাওয়ার পর তার পরিবারের সদস্যদের নির্যাতনে একপর্যায়ে রাবেয়াকে বাধ্য করা হয় তার স্বামী সুমনকে ডিভোর্স দিতে। সেই থেকে গত ৩ বছর যাবৎ পুত্রসন্তানসহ রাবেয়া তার বাবার বাড়িতে বসবাস করে আসছিলো। অতিসম্প্রতি সুমন ছুটিতে দেশে আসার পর তার পরিবারের লোকজন তড়িঘড়ি করে পার্শ্ববর্তী গৌরনদী উপজেলার তাঁরাকুপি গ্রামের ইঙ্গুল বেপারীর মেয়ে ঝুমা আক্তারের সাথে বিয়ে করায়।

পরবর্তীতে সুমন অতিগোপণে ২য় স্ত্রীসহ পরিবারের সবার অজান্তে তার ১ম স্ত্রী রাবেয়া বেগমকে পুনরায় বিয়ে করেন। বিষয়টি জানাজানি হয়ে ছড়িয়ে পরলে এলাকায় ব্যাপক তোলপাড় শুরু হয়। এনিয়ে রাজিহার ইউপি চেয়ারম্যান ইলিয়াস তালুকদার, বার্থী ইউপি চেয়ারম্যান শাহজাহান প্যাদা, ইউপি সদস্য বজলুর রহমান, খাইরুল আহসান খোকন, আওয়ামীলীগ নেতা দেলোয়ার বেগের উপস্থিতিতে শনিবার রাতে বার্থী বাজারে এক সালিশ বৈঠক বসে। বৈঠকে প্রবাসী সুমন হাওলাদার দুই স্ত্রীকে নিয়েই সংসার করার প্রস্তাব দেয়। ইউপি চেয়ারম্যান ইলিয়াস তালুকদার ও শাহজাহান প্যাদা জানান, সুমনের দুই স্ত্রীও একত্রে সংসার করার পক্ষে মতপ্রকাশ করেন। ফলে দুই স্ত্রীকে নিয়েই প্রবাসী সুমনের দাম্পত্য জীবন পুনরায় শুরু করার রায় ঘোষণা করা হয়।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

অপূর্ব লাল সরকার, বরিশাল প্রতিনিধি #

01912-346484

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com