আদিবাসী কিশোরী ধর্ষনের প্রতিবাদে মানববন্ধন

২৭ বার পঠিত
হিউম্যান রাইটস্ ডিফেন্ডার্স ফোরাম, রাজশাহী আয়োজনে গত ২১ এপ্রিল ২০১৬ বিকাল ৫টার সময় রাজশাহী সাহেব বাজার জিরোপয়েন্টে মানববন্ধন কর্মসূচী অনুষ্ঠীত হয়।আদিবাসী ছাত্র পরিষদ রাজশাহী কলেজ আহব্বায়ক অজিত কুমার মুন্ডার সভাপতিত্ব বক্তব্য রাখেন বিশিষ্ট কলাম লেখক ও সাংবাদিক প্রশান্ত কুমার সাহা,  বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ রাজশাহী জেলা সভাপতি কল্পনা রায়, একাওরের ঘাতক দালাল নিমূল কমিটি রাজশাহী জেলা সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা শাহজাহান আলী বরজাহান, রাজশাহী রক্ষা সংগ্রাম পরিষদের সাধারণ সম্পাদক জামাত খান, মুক্তিযোদ্ধা চেতনা বাস্তাবায়ন মঞ্চ রাজশাহী জেলা সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, জাতীয় আদিবাসী পরিষদ কেন্দ্রীয় দপ্তর সম্পাদক সূভাষ চন্দ্র হেমব্রম, আদিবাসী যুব পরিষদের সাধারণ সম্পাদক নরেন পাহান এবং সংহতি বাসদ রাজশাহী জেলা সদস্য সোহরাব হোসেন।
 
উপজেলার দক্ষিণ লক্ষীপুর গ্রামের ওই আদিবাসী কিশোরী  রোববার বিকেলে পার্শ্ববর্তী গ্রাম একই উপজেলার রসুলপুরে এক আত্মীয়ের বাড়িতে বেড়াতে যায়। ওই দিন রাত ১২টার দিকে ওই আত্মীয়ের বাড়ির একটি ঘরে একা পেয়ে রসুলপুর গ্রামের দুই যুবক তাকে ধর্ষণ করে। এ ঘটনায় ওই কিশারী জ্ঞান হারিয়ে ফেলে। জ্ঞান ফেরার পর অসুস্থ অবস্থায় সোমবারে বাড়িতে এসে তাদের পরিবারসহ স্থানীয় ইউপি সদস্যকে জানায়। এ ঘটনায় সন্ধ্যায় ওই কিশোরীকে সাথে নিয়ে তার মা থানায় লিখিত অভিযোগ দিতে গেলেও পুলিশ অভিযোগ না নিয়েই তাদেরকে থানায় বসে রেখে রাতেই উপজেলার রসুলপুর গ্রামের কৃষ্ট মন্ডলের ছেলে অসিম মন্ডল (২২) ও সুনীল মহন্তের ছেলে গৌতম মহন্ত (২২) নামের দুই যুবককে আটক করে থানায় নেয় পুলিশ।
 
ওই যুবকদের থানায় আনার পর দফায় দফায় বৈঠক শেষে পরদিন মঙ্গলবার দুপুরে থানা থেকে ছেড়ে দেয় পুলিশ। এসময় পুলিশ ওই কিশোরী ও তার মাকেসহ তাদের সাথে যাওয়া গ্রামের এক ছেলেকে হুমকি ও মারপিট করে তাড়িয়ে দেয় বলেও কিশোরীর পরিবারের অভিযোগ। এ ঘটনায় উপজেলায় ও সংশিস্ন্লষ্ট বিভাগে ব্যাপক তোলপাড় শুরু হয়। এরপর মঙ্গলবার গভীর রাতে উধ্বর্তন মহলের নির্দেশে ওই কিশোরী ও তার অভিভাবকদের বাড়ি থেকে তুলে থানায় নিয়ে এসে অবশেষে অভিযোগ রেকর্ড করে পুলিশ।
Adibasi parishod .01ওই কিশোরীর মা জানান, দুই যুবকের পক্ষে প্রভাবশালী লোক সোমবার রাত থেকেই ওসি সাবের রেজা চৌধুরীর সাথে দফায় দফায় বৈঠক শেষে মোটা অংকের টাকা নিয়ে তাকে  তার অসুস’ মেয়ের সামনেই চড় থাপ্পড় মেরে সাদা কাগজে স্বাক্ষর নিয়ে থানা থেকে বের করে দেন। পরে বিভিন্ন অফিসে ঘটনাটি জানানা হয়। এরপর মঙ্গলবার রাত ১২ টার দিকে হঠাৎ থানা পুলিশ তাদের বাড়ি থেকে কিশোরী মেয়ে ও তার নানীকে তুলে থানায় নিয়ে এসে মামলা দায়ের করতে বলেন। এ ঘটনায় তার মেয়ে বাদি হয়ে তিন জনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেছেন । ধর্ষকদের পৰ নিয়ে পুলিশ ওই কিশোরীর মাকে মারপিট করে মামলা না নিয়ে থানায় থেকে বের করে দেয়ার ঘটনায় বিচার বিভাগীয় তদন্তের দাবি জানান। এ ছাড়াও পুলিশ আসামীদের আটক করে থানায় নিয়ে এসে ছেড়ে দেয়াসহ এ ঘটনার সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে দ্রত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানান।অবিল্বে ধর্ষকদের আইনের আওতায় এনে শাস্তি দাবি জানাই।
 
Suvash Chandra Hembram
Office Secretary
Jatiya Adivasi Parishad, Bangladesh &
Information & Research Secretary,
Rajshahi Rokka Songram Parishad.
ফেসবুক থেকে মতামত দিন
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com