মুশফিকুর রহমান দেশ ছেঁড়ে কানাডায় রিপোর্ট প্রকাশের পর আশুগঞ্জে তোলপাড়

৩৬ বার পঠিত

বিশেষ প্রতিনিধি # মুশফিকুর রহমান দেশ ছেঁড়ে কানাডা পারি জমিয়েছেন এই রিপোর্টের একটি অংশে আশুগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সভাপতি ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আবু আসিফ আহমেদের সখ্যতার বিষয় উঠে আসে। দিন ভর আলোচনা ছিল এই রিপোর্ট নিয়ে। আবু আসিফ আহমেদ কখনো বিএনপির রাজনীতি করেনি। ২০১৩ সালে কেন্দ্রের নির্দেশে জেলা বিএনপির সহ সভাপতি মনোনীত হন, এই কাজে অনৈতিক সুবিধা নিয়ে তাকে সহযোগিতা করেন বিএনপির সাবেক যুগ্ম মহাসচিব মোঃ শাহজাহান। ২০১৪ সালে অনুষ্ঠিত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বিএনপি প্রার্থী হিসেবে বিজয়ী হন। তৎকালীন আশুগঞ্জ উপজেলা বিএনপি ঐক্যবদ্ধ ভাবে নির্বাচন করে তাকে বিজয়ী করে। তার নির্বাচনে উল্লেখযোগ্য ভুমিকা রাখে তৎকালীন উপজেলা বিএনপির সভাপতি জহিরুল ইসলাম জারু, সাধারণ সম্পাদক মোঃ জাকির হোসেন, যুগ্ম সম্পাদক শাহ জাহান সিরাজ, সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ নাছির আহমেদ এর নেতৃত্বে বিএনপি ঐক্যবদ্ধ ভাবে নির্বাচন করে তাকে বিজয়ী করে। উল্লেখ্য ২০০৪ সালে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বিপুল ভোটে পরাজিত হয়।

আবু আসিফ আহমেদ উপজেলা বিএনপির সভাপতি হওয়ার জন্য কেন্দ্রীয় বিএনপির  সাবেক যুগ্ম মহাসচিব মোঃ শাহজাহান, চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা মুশফিকুর রহমান, জেলা বিএনপির তৎকালীন আহ্বায়ক হাফিজুর রহমান মোল্লা কচি, বিএনপি নির্বাহী কমিটির সদস্য বেলালকে নিয়মিত মাসিক টাকা প্রদান করে।২০১৪ সালে আশুগঞ্জ উপজেলা বিএনপির ৬ সদস্যের কমিটি হয় যা তৎকালীন জেলা বিএনপির মিটিং এ অনুমোদিত। গত জুলাই এ পুরনাঙ্গ কমিটি হলে ও বার বার উপস্থাপন করার পর ও অনুমোদন করেনি জেলা বিএনপির সভাপতি হাফিজুর রহমান মোল্লা কচি ও মুশফিকুর রহমান মিলে। সাবেক যুগ্ম মহাসচিব মোঃ শাহজাহান এবং চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা মুশফিকুর রহমান এর ক্ষমতায় সে দলটাকে পকেট কমিটি বানাতে চলছিল, মোঃ শাহজাহান, মুশফিকুর রহমান, কচি মোল্লা ও বেলালের সাথে অনৈতিক লেনদেনের আশুগঞ্জ উপজেলা ও জেলার নেতাদের কর্ণপাত ই করে না।

এ নিয়ে অন লাইনে রিপোর্ট প্রকাশ হলে টনক নড়ে। আশুগঞ্জে টক অব দ্য উপজেলা আবু আসিফ আহমেদ।বিএনপির মুল ধারার ত্যাগী নেতাকর্মীরা বলেন এবার যদি তার হাত থেকে আশুগঞ্জ উপজেলা বিএনপি মুক্ত হয়। আশুগঞ্জে ব্যাপক আলোচিত বিষয় কুমিল্লা বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক হওয়ার জন্য মোঃ শাহজাহান, মুশফিকুর রহমান এবং বেলালকে ২০,০০,০০০/= টাকা প্রদান করে। আশুগঞ্জ উপজেলা বিএনপি নিয়ে একটি পত্রিকায় রিপোর্ট প্রকাশ হলে ব্যাপক পতক্রিয়া সৃষ্টি হয় আশুগঞ্জে। সেই পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশকের বিরুদ্ধে উকিল নোটিশ প্রদান করে। এ ব্যাপারে ঐ পত্রিকা থেকে জেলা নেতাদের সাথে যোগাযোগ করলে জেলা বিএনপির সভাপতি হাফিজুর রহমান মোল্লা কচি বলেন যুগ্ন মহাসচিব মোঃ শাহজাহান সাহেবের সাথে যোগাযোগ করতে।

এবার আশুগঞ্জ উপজেলা বিএনপির একাধিক নেতার সাথে কথা বলে জানা যায় শুধু মাত্র উজান ভাটি হোটেল কে ব্যবহার করে আজ বিএনপির রাজনীতিতে এ পর্যায়ে এসেছে। এই আবাসিক হোটেল ব্যবহার করেন বিএনপি নেতাদের মনোরঞ্জনের জন্য। তার ব্যাংক একাউন্ট এর লেনদেন পরিক্ষা করলে পিলে চমকানো তথ্য পাওয়া যাবে। আবু আসিফ বিভিন্ন জনকে বলে বেড়াচ্ছেন আমাদের বিশেষ প্রতিবেদককে তুলে নিয়ে যাবেন।

আবু আসিফ আহমেদ উপজেলা বিএনপির সভাপতি হয়ে দীর্ঘ দিনের ত্যাগী এবং পরীক্ষিত নেতাকর্মীদের বিএনপি থেকে বিদায় করেছেন। অভিলম্বে আবু আসিফ আহমেদকে অপসারন করা না হলে আশুগঞ্জ উপজেলা বিএনপির অস্তিত্ব বিলীন হয়ে যাবে। আশুগঞ্জ উপজেলা সাবেক বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান কমিটির সহ সভাপতি মোঃ জাকির হোসেন বলেন মুশফিকুর রহমানের হাত যেখানে পরবে। সেখানে বিএনপি বিলীন হয়ে যাবে। তৃণমূল নেতাকর্মীদের দাবী আবু আসিফ মুক্ত বিএনপি চাই।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আদিত্ব্য কামাল, ব্রাক্ষণবাড়ীয়া প্রতিনিধি #

Adithay Kamal House#412, Alhampara, Bhadughar 3400 Brahmanbaria, Bangladesh Mobile : 01713-209385

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com