,

AD
নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

অমর একুশে বইমেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী

লাইক এবং শেয়ার করুন

অমর একুশে বইমেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শুরু হয়েছে। সোমবার বিকাল তিনটায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়েছেন। তিনি এই মেলার শুভ উদ্বোধন ঘোষণা করবেন। সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে রয়েছেন। সভাপতিত্ব করছেন এমিরিটাস অধ্যাপক আনিসুজ্জামান। মেলার উদ্বোধন অনুষ্ঠান বাংলাদেশ টেলিভিশন ও বাংলাদেশ বেতার সরাসরি সম্প্রচার করছে। এবারের গ্রন্থমেলার মূল থিম নির্ধারণ করা হয়েছে ‘বাংলা একাডেমির হীরকজয়ন্তী’। এ প্রসঙ্গে মহাপরিচালক জানান, ঐতিহাসিক বর্ধমান হাউসের আদলে মেলায় বাংলা একাডেমির প্যাভিলিয়ান নির্মাণ করা হয়েছে। ৪০তম কলকাতা আন্তর্জাতিক পুস্তকমেলায়ও বাংলাদেশ প্যাভিলিয়নটি বাংলা একাডেমির হীরকজয়ন্তী স্মারক বর্ধমান হাউসের আদলেই নির্মাণ করা হয়েছিল।

 

প্রায় দ্বিগুণ পরিসর নিয়ে এবারের মেলার আয়োজন করা হয়েছে জানিয়ে শামসুজ্জামান খান জানান, এবছর বাংলা একাডেমি ও একাডেমি সম্মুখস্থ ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের চার লাখ ৭৮ হাজার বর্গফুট এলাকা নিয়ে গ্রন্থমেলার স্টল বিন্যাস করা হয়েছে। গতবছর এ আয়তন ছিল প্রায় দুই লাখ ৫০ হাজার বর্গফুট। তিনি বলেন, একাডেমি প্রাঙ্গণে ৮২টি প্রতিষ্ঠানকে ১১১টি এবং সোহরাওয়ার্দী উদ্যান অংশে ৩২০টি প্রতিষ্ঠানকে ৫৪০টি ইউনিটসহ মোট ৪০২টি প্রতিষ্ঠানকে ৬৫১টি ইউনিট বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। মেলায় বাংলা একাডেমিসহ ১৪টি প্রকাশনা প্রতিষ্ঠানকে ১৫টি প্যাভিলিয়নের স্থান দেয়া হয়েছে। যার মোট আয়তন ৬ হাজার বর্গফুট। গতবছর ১১টি প্যাভেলিয়নসহ ৫৬৫টি ইউনিট বরাদ্দ দেয়া হয়েছিল।

 

৯২টি লিটল ম্যাগাজিনকে বর্ধমান হাউজের দক্ষিণ পাশে স্টল বরাদ্দ দেয়া হয়েছে জানিয়ে একাডেমির মহাপরিচালক বলেন, ক্ষুদ্র প্রকাশনা সংস্থা এবং ব্যক্তি উদ্যোগে যারা বই প্রকাশ করেছেন, তাদের বই বিক্রি/প্রদর্শনের ব্যবস্থা থাকবে জাতীয় গ্রন্থকেন্দ্রের স্টলে। গ্রন্থমেলায় বাংলা একাডেমি প্রকাশিত বই ৩০% কমিশনে বিক্রি হবে জানিয়ে তিনি বলেন, মেলায় অংশগ্রহণকারী অন্যান্য প্রকাশনা প্রতিষ্ঠান ২৫% কমিশনে বই বিক্রি করবে। একাডেমি প্রাঙ্গণ এবং সোহ্রাওয়ার্দী উদ্যানে বাংলা একাডেমির ২টি প্যাভিলিয়ন ছাড়াও একাডেমি প্রকাশিত অভিধান বিক্রয়কেন্দ্র, একাডেমির শিশুকিশোর প্রকাশনাভিত্তিক বিক্রয়কেন্দ্র এবং একাডেমির সাহিত্য মাসিক উত্তরাধিকার’এর বিক্রয়কেন্দ্র মেলায় থাকবে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

 

অমর একুশে গ্রন্থমেলার সোহ্রাওয়ার্দী উদ্যান অংশকে ১৫টি গুচ্ছে সজ্জিত করা হয়েছে উল্লেখ করে একাডেমির কর্ণধার জানান, চত্বরগুলো নামাঙ্কিত থাকবে ভাষাশহিদ আবুল বরকত, আবদুস সালাম, শফিউর রহমান, রফিকউদ্দিন আহমদ, আবদুল জব্বার, শহিদ বুদ্ধিজীবী মুনীর চৌধুরী, জ্যোতির্ময় গুহঠাকুরতা, আলতাফ মাহমুদ, সিরাজুদ্দীন হোসেন, ডা. আলীম চৌধুরী, সেলিনা পারভীন, শিশুসাহিত্যিক সাজেদুল করিম, হাবীবুর রহমান, ফয়েজ আহমদ এবং রোকনুজ্জামান খান দাদাভাই’র নামে। এবার শিশুকর্নার মেলার সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে নিয়ে যাওয়া হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, শিশুকিশোর প্রকাশনা প্রতিষ্ঠানসমূহ যেন বইমেলায় ক্রয়-বিক্রয়ের মূলধারায় অন্তর্ভুক্ত থাকতে পারে সে জন্যই এই ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। এ কর্নারকে শিশুকিশোর বিনোদন ও শিক্ষামূলক অঙ্গসজ্জায় সজ্জিত করা হচ্ছে। মাসব্যাপী গ্রন্থমেলায় এবারও শিশুপ্রহর ঘোষণা করা হবে।


লাইক এবং শেয়ার করুন
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

আরও অন্যান্য সংবাদ