ভারতের অন্ধপ্রদেশে সহিংসতা : ট্রেনে অগ্নিসংযোগ, ১৫ পুলিশ আহত

২৭ বার পঠিত

ভারতের অন্ধ্রপ্রদেশ রাজ্যে সংরক্ষণের দাবিতে ট্রেন ও থানায় আগুন দিয়েছে উত্তেজিত জনতা। ওবিসি বা অন্যান্য অনগ্রসর শ্রেণির অন্তর্ভুক্ত করার দাবিতে কাপু সম্প্রদায়ের মানুষজন এই সহিংস আন্দোলনে শামিল হন। রোববার বিকেলে বিক্ষোভকারীরা রত্নাচল এক্সপ্রেসে পাথর ছুঁড়ে ৮ টি বগিতে আগুন ধরিয়ে দেয়ার পাশাপাশি দুটি পুলিশ থানায় আগুন ধরিয়ে দেয়। চাঞ্চল্যকর এই ঘটনায় যাত্রীদের কোনো ক্ষয়ক্ষতি না হলেও ১৫ জন পুলিশ কর্মী আহত হয়েছে। পুলিশের দুটি গাড়ি এবং অন্য ৮ টি গাড়িতেও আগুন দেয় উত্তেজিত জনতা। রোববার গভীর রাতে অবশেষে হিংসাত্মক এই আন্দোলনের ইতি ঘটলে পুলিশ এবং প্রশাসনের পক্ষ থেকে রেললাইন পরিষ্কার করার কাজ শুরু হয়েছে।

 

অন্য একটি সূত্রে প্রকাশ, বিক্ষোভকারীরা গভীর রাত পর্যন্ত চেন্নাই-কোলকাতা জাতীয় সড়ক আটকে রাখায় যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। একাধিক জায়গায় রেল লাইনের উপরে আন্দোলনকারীরা বসে থাকায় ট্রেন চলাচল ব্যাহত হয়েছে। বিক্ষোভ এবং অগ্নিসংযোগের ঘটনায় বেশ কিছু ট্রেনকে অন্যলাইন দিয়ে ঘুরিয়ে দেয়া হয়।

 

এদিন বিকেলে বিক্ষোভকারীরা যাত্রীদের ট্রেন থেকে বেরিয়ে আসতে বলে এবং তারপরেই ওই এক্সপ্রেস ট্রেনটিতে আগুন ধরিয়ে দেয়। তারা টুনি রেল স্টেশনে ভাঙচুর চালালে ৪ রেলকর্মী আহত হন। সংশ্লিষ্ট এলাকায় অতিরিক্ত নিরাপত্তা বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। এ ঘটনার পরে মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রবাবু নাইডু মন্ত্রিসভার জরুরি বৈঠকে বসে পরিস্থিতি পর্যালোচনা করেন। বিক্ষোভকারীরা কাপু জনগোষ্ঠীর লক্ষাধিক জনতা পূর্ব গোদাবরীর টুনি শহরে জড়ো হয়। এতে বিভিন্ন দলের কাপু সম্প্রদায়ের নেতারা শামিল হন এবং তারা কাপু সম্প্রদায়কে ওবিসিতে অন্তর্ভুক্ত করে শিক্ষা এবং চাকরিতে সংরক্ষণ দেয়ার দাবি জানান। কাপু নেতা এবং সাবেক মন্ত্রী মুদ্রাগদা পদ্মনাভম জানান, দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত তাদের আন্দোলন চলবে।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com