,

AD
নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

জয় দিয়ে শুরু মাশরাফিদের

লাইক এবং শেয়ার করুন

চার ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম খেলায় সফরকারী জিম্বাবুয়েকে ৪ উইকেটে হারিয়েছে বাংলাদেশ। খুলনার শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামে টস জিতে ব্যাটিং করে ২০ ওভারে ৭ উইকেটে ১৬৩ রান করতে সক্ষম হয় জিম্বাবুয়ে। হ্যামিল্টন মাসাকাদজা ও ভুসি সিবান্দার শতরানের উদ্বোধনী জুটির পর অবশ্য আরো বড় স্কোরের হাতছানি ছিল জিম্বাবুয়ের সামনে। ইনিংসের তৃতীয় ওভারেই মাশরাফিকে তিনটি চার মেরে ইঙ্গিতটা দিয়েছিলেন তিনি। সময় যত গড়িয়েছে, ততই ছড়ি ঘুরিয়েছেন বাংলাদেশের বোলারদের ওপর। আরেক প্রান্তে দলে ফেরা ভুসি সিবান্দাও দারুণ সঙ্গ দিয়েছেন মাসাকাদজাকে। দুজনে গড়েন রেকর্ড ১০১ রানের জুটি। জিম্বাবুয়ে হয়ে এটিই টি-টোয়েন্টিতে সর্বোচ্চ ওপেনিং জুটি। আগের সেরা ছিল গত অক্টোবরে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে চামু চিবাবা ও সিকান্দার রাজার ১০০।

 

লং অনে সৌম্য সরকারের ক্যাচ মিসে ছক্কা হজম করার পরের বলেই সিবান্দাকে ফিরিয়ে এই জুটি ভেঙেছেন সাকিব। ৩৯ বলে ৪৬ রান করে ফিরে গেছেন সিবান্দা। তবে মাসাকাদজা ঝড়ো ব্যাটিং চালিয়ে গেছেন আরো কিছুক্ষণ। ১৮তম ওভারে রান আউট হয়ে সাজঘরে ফেরার আগে করেছেন ৫৩ বলে ৭৯ রান। মেরেছেন নয়টি চার ও দুটি ছয়।

 

শেষ তিন ওভারে ভালো বোলিং করে জিম্বাবুয়ের সংগ্রহটা খুব বেশি বড় করতে দেননি মুস্তাফিজুর রহমান ও আল-আমিন হোসেন। শেষ তিন ওভারে জিম্বাবুয়ে সংগ্রহ করতে পেরেছে ১৬ রান। হারিয়েছে চারটি উইকেট। ১৯ ও ২০তম ওভারে মুস্তাফিজ ও আল আমিন নিয়েছেন দুটি করে উইকেট। সব মিলিয়ে চার ওভার বল করে ১৮ রানের বিনিময়ে দুটি উইকেট নিয়েছেন মুস্তাফিজ। চার ওভার বল করে ২৪ রানের বিনিময়ে আল আমিনও নিয়েছেন দুটি উইকেট।

জয় দিয়ে শুরু মাশরাফিদের

১৬৪ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে দলীয় ৩১ রানের মাথায় বাংলাদেশের প্রথম উইকেটের পতন হয়। ভুল বুঝাবুঝির শিকার হয়ে রান আউট হন সৌম্য সরকার। এরপর ৫৮ রানের মাথায় ব্যক্তিগত ২৯ রানে ক্রেমারের বলে সিবান্দার হাতে ক্যাচ দেন তামিম ইকবাল। উদ্বোধনী জুটির বিদায়ের পর হাল ধরেন সাব্বির রহমান। ৩৬ বলে ৪৬ রান করে দলকে নিয়ে যান সুবিধাজনক অবস্থানে। ১১৮ রানের মাথায় তার বিদায়ে কিছুটা চাপে পড়ে স্বাগতিকরা।

 

এরপরও নিয়মিত বিরতিতেই উইকেট পড়তে থাকে বাংলাদেশের। মুশফিকুর রহিম ও মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের বিদায়ে স্বাগতিকদের স্কোর দাঁড়ায় ১৩৭/৬। তবে তখনো মাঠে সাকিব আল হাসান। তাই ১৬৪ রানের গন্তব্যে পৌঁছাতে বেশি বেগ পোহাতে হয়নি টাইগারদের। অভিষেক হওয়া নুরুল হাসানকে সঙ্গে নিয়ে বাকি পথটুকু পাড়ি দেন তিনি। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে এর আগে পাঁচটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলে তিনটিতে জয় পেয়েছে বাংলাদেশ। ৫৩ বলে ৭৯ রান করে ম্যান অব দ্যা ম্যাচ পুরস্কার পান জিম্বাবুয়ের ওপেনার হ্যামিল্টন মাসাকাদজা। খুলনার শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামে দু দেশের মধ্যে পরবর্তী ম্যাচগুলো অনুষ্ঠিত হবে ১৭, ২০ এবং ২২ জানুয়ারি। প্রতিটি ম্যাচই বিকেল ৩টায় শুরু হবে।


লাইক এবং শেয়ার করুন
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

আরও অন্যান্য সংবাদ