,

AD
নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

মানিকগঞ্জে ধর্মযাজকসহ চারজনকে কাফনের কাপড় পাঠিয়ে হুমকি

লাইক এবং শেয়ার করুন

মানিকগঞ্জ জেলার সাটুরিয়া পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি সমরেন্দু সাহা লাহোর  ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি রুহুল আমিনসহ চারজনকে কাফনের কাপড় ও চিঠি দিয়ে হুমকি দিয়েছে ‘আনসারুল্লাহ বাহিনী’।  এমন অভিযোগের ভিত্তিতে মঙ্গলবার দিবাগত রাতে সাটুরিয়া থানায় নিরাপত্তা চেয়ে সাধারণ ডায়রি (জিডি) করেছেন সাটুরিয়া পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি সমরেন্দু সাহা লাহোর। সাধারণ ডায়রি (জিডি) নং ৪০৪, তারিখ- ১২-০১-২০১৬।  

 

জিডি সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার বিকেলে সাটুরিয়া উপজেলা পুজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি সমরেন্দু সাহা লাহোরের স্থায়ী ঠিকানায় ডাকযোগে এবিটি মানিকগঞ্জ জেলা একটি চিঠি আসে। চিঠিতে সাটুরিয়া পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি প্রভাষক সমরেন্দু সাহা লাহোর (ভারতের দালাল উল্লেখ করে), বালিয়াটী উদিচি শাখার সভাপতি আবুল হোসেনকে (ইসলামবিরোধী কর্মকাণ্ডের জন্য), বালিয়াটী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. রুহুল আমিন (আওয়ামী দালাল হিসেবে), বালিয়াটী রাম কৃষ্ণের অধ্যক্ষ স্বামী পরিমুক্তানন্দকে (মুরতাদ ঘোষণা করে) হুমকি দিয়েছে।

 

চিঠিতে পবিত্র কুরআনের একটি আয়াত উল্লেখ করা হয়েছে, ‘তোমরা পাপিষ্ঠ প্রতারক ও নিচ প্রকৃতির। কাফিরদের মর্মাস্তিক শাস্তি প্রস্তুত রেখেছি। তোমরা আমাদের পরবর্তী টার্গেট, প্রস্তুত থাক।’ এ চিঠির সাথে কাফনের কাপড় পাঠানো হয়। সাটুরিয়া পুজা উদযাপন কমিটির সভাপতি সমরেন্দু সাহা লাহোর এ সম্পর্কে জানান, ‘আমি পাকুটিয়া কলেজের বাংলার প্রভাষক, আমি বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি নির্বাচিত হয়েছি, সাটুরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি, আমার কোনো সামাজিক, রাজনৈতিক ও ধর্মীয় কোনো প্রতিপক্ষ নেই। এবিটি মানিকগঞ্জ জেলা, এর মানে আনসারুল্লাহ বাংলা টিম বোঝানো হতে পারে। হয়ত আমাকে মানসিক টর্চার করার জন্য এমন হুমকিযুক্ত কাফনের কাপড় দিয়ে হুমকি চিঠি পাঠাতে পারে।’

 

এ ব্যাপারে সাটুরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি মো. হাবিবুল্লাহ সরকার বলেন, ‘মঙ্গলবার দিবাগত রাতে হুমকি পাওয়া ধর্মযাজকসহ ৪ ব্যক্তিই আমার থানায় এসেছিলেন। পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি একটি ডায়রি করেছে। আমরা তদন্ত করে দেখছি।’ এর আগে গত ৬ জানুয়ারি সাটুরিয়া উপজেলার বালিয়াটী দাখিল মাদ্রাসার সুপার মাওলানা মোঃ লিয়াকত আলীকে রাত ৮.৩৯ মিনিটে মোবইলে চাঁদা চেয়ে হুমকি দেয়। পূর্ব বাংলা কমিউনিষ্ট পার্টি জেলা শাখার সভাপতি পরিচয় দিয়ে ০১৭০৮ ৭০৭৫৮৪ নাম্বার দিয়ে তার কাছে মোটা অংকের টাকা চেয়ে হুমকি দেয়া হয়। অন্যথায় তার ছেলেকে অপরহরণ করবে বলেও হুঁশিয়ার করে দেয়া হয়েছিল।

 

উল্লেখ্য, ১৮ নভেম্বর সকালে দিনাজপুর শহরের বিআরটিসি’র মির্জাপুর বাস ডিপোর অদূরে সুইহারি ক্যাথলিক চার্চের ধর্মযাজক ইতালীয় পিয়েরো পিচমকে হত্যার উদ্দেশ্যে গুলি করে জেএমবি সন্ত্রাসীরা। ইতালীয় ধর্মযাজক হত্যা চেষ্টা মামলায় এই দুজনসহ ছয় জেএমবি সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। জেএমবি’র সদস্য শরিফুল ইসলাম ইতালীয় ধর্মযাজক ডাঃ পিয়েরো পিচম হত্যা চেষ্টায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দী দিয়েছে।

 

এর আগে ৫ অক্টোবর সকাল ৯টায় তিন যুবক পাবনার ঈশ্বরদী বিমানবন্দর সড়কের ভাড়া বাসায় ঢুকে ধর্মগ্রন্থ পাঠ শোনার কথা বলে ঈশ্বরদীর ফেইথ বাইবেল চার্চের যাজক লুক সরকারকে গলা কেটে হত্যার চেষ্টা চালায়। এ ঘটনার পর ওইদিন রাতেই লুক সরকার বাদী হয়ে একটি মামলা করেন। পরে এ মামলার প্রধান আসামি জেএমবি পাবনার আঞ্চলিক কমান্ডার রাকিবুল ইসলাম ওরফে রাকিব ওরফে তাওহিদ ওরফে রাজন ওরফে রফিককে (২১) গ্রেফতার করেছে পুলিশ।


লাইক এবং শেয়ার করুন
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আরও অন্যান্য সংবাদ