সিলেট ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে চালু হচ্ছে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট

৪৯ বার পঠিত

আগামী মার্চে সিলেট ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে চালু হচ্ছে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট। আন্তর্জাতিক ঘোষণার প্রায় ১৮ বছর পর ১৮ মার্চ থেকে এই বিমানবন্দর হতে ফ্লাই দুবাই’র ফ্লাইট চালু হবে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিস্টরা। ১৯৯৮ সালের ২০ ডিসেম্বর ওসমানী বিমানবন্দরকে আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর হিসেবে উন্নীত করা হয়।

ফ্লাই দুবাই’র সিলেটের স্টেশন ম্যানেজার মাসুম মিয়া সাংবাদিকদের বলেন, আগামী ১৮ মার্চ হতে আমরা সিলেট থেকে সরাসরি ফ্লাইট চালুর প্রস্তুতি নিচ্ছি। প্রথম তিন মাস ওসমানী থেকে সপ্তাহে পাঁচদিন দুবাই, কাতার, সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশে ফ্লাইট পরিচালিত হবে। তিন মাস পর সপ্তাহে সাতদিনই ফ্লাইট থাকবে। ফ্লাই দুবায়ের মাধ্যমে ওসমানীতে প্রথমবারের মতো বিদেশী উড়োজাহাজও অবতরণ করতে যাচ্ছে।

এর আগে ২০১৫ সালের ১ মে ওসমানী বিমানবন্দরে অবরতরণ করে ফ্লাই দুবাই। কিন্তু গ্রাউন্ড সার্ভিস না পাওয়ায় ১ মে যাত্রী নিয়ে উড়াল দেওয়ার পর আর ওসমানীতে অবতরণ করেনি এই বিদেশী উড়োজাহাজ। ইতিমধ্যে সিভিল এভিয়েশনের ছাড়পত্র পাওয়া গেছে। ফ্লাই দুবাই সিলেট ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে রিজেন্ট এয়ারওয়েজের গ্রাউন্ড সার্ভিস নেবে।

সংশ্লিষ্ট একাধিক সূত্রে জানা যায়, সিলেট এম এ জি ওসমানী অন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে রিজেন্ট এয়ারওয়েজের ফ্লাইট ‘গ্রাউন্ড হ্যান্ডলিংয়ে’র অনুমতি রয়েছে। ফ্লাই দুবাই তাদের কাছ থেকে অনুমতি নিয়ে গত বছর ফ্লাইট অপারেট শুরু করে। কিন্তু এতে বেঁকে বসে বিমান কর্তৃপক্ষ। বিমানের কাছ থেকে গ্রাউন্ড হ্যান্ডেলিংয়ের অনুমতি না নেওয়ায় বন্ধ হয়ে যায় ফ্লাই দুবাই’র ফ্লাইট।

সিলেট ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর সূত্র জানিয়েছে, সিলেট বিমানবন্দর দিয়ে প্রতিদিন ৬-৭শ’ জন প্রবাসী বিশ্বের বিভিন্ন দেশে যাতায়াত করেন। কোনো বিকল্প না থাকায় বিমানের ফ্লাইটের উপরই তাদের নির্ভর করতে হয়।

ওসমানী বিমানবন্দরের কর্মকর্তারা জানান, কেবল ফ্লাই দুবাই-ই নয়, এয়ার এরাবিয়া, জেট এয়ারসহ কয়েকটি বিদেশি কোম্পানি সিলেট থেকে সরাসরি ফ্লাইট চালুর প্রক্রিয়া চালাচ্ছে বলে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন। প্রবাসীবহুল অঞ্চল হওয়ায় সিলেটে আন্তর্জাতিক ফ্লাইটের যাত্রী রয়েছেন। তাই বিদেশী এয়ারওয়েজ প্রতিষ্ঠানগুলো সিলেটে আসতে আগ্রহী।

সিলেট অঞ্চলের প্রায় ৫০ লাখ প্রবাসী যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র, মধ্যপ্রাচ্যসহ বিভিন্ন দেশে বসবাস করেন। ওসমানী বিমানবন্দর থেকে সরাসরি আন্তর্জাতিক ফ্লাইট না থাকায় দূর্ভোগ পোহাতে হয় তাদের। আন্তর্জাতিক ফ্লাইট চালুর জন্য তারা দীর্ঘদিন থেকেই দাবি জানিয়ে আসছেন। এরআগে ওসমানী থেকে বাংলাদেশ বিমানের সিলেট-যুক্তরাজ্যে হিথ্রো বিমানবন্দরে সরাসরি ফ্লাইট চালু চলেও ২০১৪ সালে কুয়াশার অজুহাত দেখিয়ে বিমানও সরাসরি ফ্লাইট বন্ধ করে দেয়।

প্রবাসীদের দাবির মুখে ২০১৫ সালে প্রায় ৯১ কোটি টাকা ব্যয়ে ওসমানী বিমানবন্দরে স্থাপিত হয় রিফুয়েলিং স্টেশন। গত বছর থেকে এই রিফুয়েলিং স্টেশন চালু হয়। কিন্তু আন্তর্জাতিক ফ্লাইট না থাকায় এই স্টেশনের জ্বালানি বিক্রি হচ্ছে না। ফলে চালুর পর থেকেই লোকসানে ওসমানীর রিফুয়েলিং স্টেশন।

এদিকে, রানওয়েসহ বিমানবন্দরের সংস্কার হলে ওসমানী বিমানবন্দরে আগামীতে নিয়মিতই আন্তর্জাতিক ফ্লাইট চালু করা সম্ভব হবে বলে মনে করেন এই বিমানবন্দরের ব্যবস্থাপক হাফিজ আহমদ।

তিনি জানান, ওসমানী বিমানবন্দরের বিদ্যমান রানওয়ে ও টেক্সিওয়ে শক্তিশালী করণের মাধ্যমে ওয়াইড বডি বোয়িং ৭৭৭ মডেলের বিমানসহ অন্যান্য ফ্লাইট পরিচালনার জন্য ৪৫২ কোটি টাকার প্রকল্প একনেকে অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এখন কাজ শুরুর জন্য পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

শহীদুর রহমান জুয়েল, সিলেট ব্যুরো #

শহীদুর রহমান জুয়েল (উদয় জুয়েল), সিলেট ব্যুরো ০১৭২৩৯১৭৭০৪

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com