,

AD
নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

কুষ্টিয়ার ভ্যানচালক আবু বক্কর হত্যা মামলায় ৬ জনের ফাঁসির আদেশ

লাইক এবং শেয়ার করুন

মোঃ রাজন আমান (কুষ্টিয়া জেলা প্রতিনিধি)#  কুষ্টিয়া জেলার সদর মডেল থানায় বাড়ী থেকে ডেকে নিয়ে ভ্যান চালক আবু বক্কর সিদ্দিক (৩০) কে গলা কেটে হত্যার অভিযোগে দায়ের করা মামলায় ৬ জনকে ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন আদালত। ০৭/০২/১৭ ইং তারিখ রোজ মঙ্গলবার দুপুরে কুষ্টিয়ার জেলা ও দায়রা জজ ১ম আদালতের বিজ্ঞ বিচারক রেজা মো: আলমগীর হাসান এক জনাকীর্ণ আদালতে এ রায় ঘোষণা করেন। ফাঁসির সাজাপ্রাপ্ত আসামীরা হল- কুষ্টিয়া সদর উপজেলার রাতুলপাড়া গ্রামের ফাকের মন্ডলের ছেলে সাজ্জাদ, কুষ্টিয়া সদর উপজেলার জোতপাড়া গ্রামের মৃত মধু মন্ডলের ছেলে মাজেদ, মৃত আতর মন্ডলের ছেলে  শুকচাঁদ ও রাশিদুল ইসলাম, সদর উপজেলার রাতুল পাড়া গ্রামের মৃত শাহাদত মন্ডলের ছেলে কালাই ও মৃত জয়নাল শেখের ছেলে মনছের আলী। রায় ঘোষনার সময় ৫ আসামী আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

এদের মধ্যে রাশিদুল ইসলাম নামে এক আসামী পলাতক রয়েছেন।কুষ্টিয়া আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) এ্যাডভোকেট অনুপ কুমার নন্দী জানান, ২০১২ সালের ১০ জুন রাত সাড়ে ৭টায় সদর উপজেলার জোতপাড়া গ্রামের আব্দুল জলিলের ছেলে ভ্যানচালক আবু বক্কর সিদ্দিক কে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যায় একই এলাকার সাজ্জাদ ও মাজেদ নামে দুই যুবক। পরের দিন সকাল ৭টায় জোতপাড়া গ্রামের কাঞ্চিখালী মাঠের মধ্যে আবু বক্কর সিদ্দিকের গলাকাটা লাশ পাওয়া যায়।

এ ঘটনায় ঐ দিন নিহতের বড় ভাই নুর হক মন্ডল বাদী হয়ে অজ্ঞাত আসামীদের বিরুদ্ধে কুষ্টিয়া মডেল থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলা নং-১৩, তারিখ-১১-৬-১২ইং। জিআর ২২৮/১২। মামলাটির তদন্তকারী কর্মকর্তা পুলিশের এসআই আরিফুর রহমান তদন্ত শেষে আবু সিদ্দিককে বাড়ী থেকে ডেকে নিয়ে যাওয়া সাজ্জাদ ও মাজেদকে প্রধান আসামীসহ ৭জনকে অভিযুক্ত তাদের নাম উলে¬খ করে আদালতে চুড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিল করে। আদালতে আসামী শুকচাঁদ, রাশিদুল ও জামিরুল ১৬৪ ধারায় হত্যার সাথে জড়িত মর্মে তারা স্বীকারোক্তি প্রদান করে। এদের মধ্যে জামিরুল ইসলাম পুলিশের সাথে ক্রসফায়ারে নিহত হন।

পরে সেসন ০৭/১৩ নং-মামলায় নথিভূক্ত হয়ে বিচার কাজ শুরু হয়। রাষ্ট্র পক্ষের একাধিক স্বাক্ষীর স্বাক্ষ্য গ্রহন শেষে আসামীগনের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ সন্দেহাতীতভাবে প্রমানীত হওয়ায় বিচারক তাদের ফাঁসি ও ৫ লাখ টাকা জরিমানার আদেশ।রাষ্ট্রপক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন কুষ্টিয়া আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) এ্যাডভোকেট অনুপ কুমার নন্দী। তাকে সহযোগিতা করেন অতিরিক্ত পিপি এ্যাড.জাহাঙ্গীর আলম গালিব এবং আসামী পক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন সিনিয়র আইনজীবি এ্যাড.সিরাজ-উল-ইসলাম ও এ্যাড.আবু সাইদ। পরে আসামীদের জেলা কারাগারে প্রেরণ করাহয়।


লাইক এবং শেয়ার করুন
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

আরও অন্যান্য সংবাদ