শিশু নিরবকে বাঁচানো গেলো না অবশেষে

২৫ বার পঠিত

দীর্ঘ সাড়ে চার ঘণ্টা উদ্ধার অভিযানের পর অজ্ঞান অবস্থায় বুড়িগঙ্গা নদী থেকে উদ্ধার করা হলেও বাঁচানো গেল না শিশু নিরবকে (৫)। অজ্ঞান অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে জরুরি বিভাগের মেডিকেল অফিসার সোহেল রানা শিশু নিরবকে (৫) মৃত ঘোষণা করেন। এর আগে বিকেল ৪টার দিকে রাজধানীর শ্যামপুরে বরইতলার পাশে নাগরদোলা দেখতে গিয়ে ঢাকনা খোলা একটি ম্যানহোলে পড়ে যায় শিশু নিরব। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের বেশ কয়েকটি ইউনিট, ওয়াসা ও ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের উদ্ধার কর্মীরা ঘটনাস্থলে উদ্ধার অভিযান চালান।

এর এক পর্যায়ে রাত ৮টা ২৫ মিনিটের দিকে বুড়িগঙ্গা নদী থেকে অজ্ঞান অবস্থায় শিশু নিরবকে উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারের পরপরই অ্যাম্বুলেন্সে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। তবে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে জরুরি বিভাগে সকল প্রকার পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে রাত ৯টায় মৃত ঘোষণা করেন মেডিকেল অফিসার সোহেল রানা।

নিরব রেজাউল ইসলাম ও নাজমা বেগমের একমাত্র সন্তান। তারা শ্যামপুরের পালাপাড়ার বরইতলা এলাকায় একটি বাড়িতে ভাড়া থাকেন। উল্লেখ্য, গত বছরের ২৬ ডিসেম্বর শাহজাহানপুরের রেল কলোনিতে ওয়াসার একটি পরিত্যক্ত পাইপে পরে জিহাদ নামের একটি শিশু মারা যায়। ফায়ার সার্ভিস চেষ্টা চালিয়ে জিহাদকে উদ্ধার করতে ব্যর্থ হলে কয়েকজন তরুণের চেষ্টায় পাইপের ভেতর থেকে জিহাদের লাশ তুলে আনা হয়।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com