নারায়ণগঞ্জে ১০ লাখ টাকা চাঁদা চেয়ে সাড়ে চার ঘণ্টা অবরুদ্ধ ৯ পুলিশ

৬১ বার পঠিত
নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ের জামপুর ইউনিয়নের মিরেরবাগ এলাকায় একটি শিল্প-প্রতিষ্ঠানে চাঁদা দাবির অভিযোগে সোনারগাঁ থানার এসআই আমিনুল, আব্দুল লতিফ ও কনস্টেবলসহ ৯ জনকে ডাকাত সন্দেহে মসজিদের মাইকে ঘোষণা দিয়ে অবরুদ্ধ করেছে এলাকাবাসী। রোববার রাতে কাউছার টেক্সটাইল নামের একটি শিল্প-প্রতিষ্ঠানে তাদের অবরুদ্ধ করা হয়। খবর পেয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সাজিদুর রহমান ও সোনারগাঁ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) এস এম ওবায়েদুল হক রাতেই ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে অবরুদ্ধদের উদ্ধার করেন। এ ঘটনায় ওই এলাকার সাধারণ মানুষের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে।

এলাকাবাসী জানায়, সোনারগাঁ থানা পুলিশে উপ-পরিদর্শক (এসআই) আমিনুল ও আব্দুল লতিফ তাদের সঙ্গীয় দুই কনস্টেবল নিয়ে সাদা পোশাকে রোববার সন্ধ্যায় মিরেরবাগ এলাকায় কাউছার টেক্সটাইল নামের একটি শিল্প-প্রতিষ্ঠানের আশপাশে অবস্থান নেয়। এ সময় স্থানীয় কারাবন্দি সন্ত্রাসী ও মাদক বিক্রেতা হিমেলের স্ত্রী রুমা আক্তারকে ওই শিল্পকারখানার ভেতরে পাঠিয়ে শিল্প মালিক বিল্লাল হোসেনের অবস্থান নিশ্চিত করে। পরে এসআই আমিনুল ও আব্দুল লতিফ দুই কনস্টেবল ও স্থানীয় চিহ্নিত দুধর্ষ সন্ত্রাসী হাবিবুর রহমান হাবিব, মিঠু, গোলজার, জয়নালকে সঙ্গে নিয়ে ওই শিল্পকারখানার ভেতরে জোরপূর্বক প্রবেশ করেন।

এক পর্যায়ে কারখানা মালিক বিল্লাল হোসেনকে আটক করে মারধর করে ১০লাখ টাকা চাঁদা দাবী করে। এসময় ব্যবসায়ী বিল্লাল হোসেন চিহ্নিত সন্ত্রাসীদের মারধরের শিকার হয়ে ডাকাত বলে চিৎকার শুরু করে। বিষয়টি এলাকাবাসী শুনতে পেরে স্থানীয় মসজিদের মাইকে ঘোষণা দিয়ে এলাকাবাসী একত্রিত হয়ে তাদেরকে অবরুদ্ধ করেন। পরে অবরুদ্ধদের মধ্যে দুইজন নিজেকে থানা পুলিশের এসআই ও দুই জন কনস্টেবল বলে দাবী করেন।

এদিকে, পুলিশ সদস্য অবরুদ্ধ হওয়ার খবর পেয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সাজিদুর রহমান ও সোনারগাঁ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) এস এম ওবায়েদুল হক রাতেই ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন। জামপুর ইউনিয়ন পরিষদের ওয়ার্ড সদস্য সুজন মিয়া জানান, সন্ত্রাসীদের নিয়ে সাদা পোশাকে পুলিশ সদস্যরা টাকার দাবিতে ব্যবসায়ী বিল্লালকে মারধর করায় এলাকাবাসী ডাকাত সন্দেহে তাদেরকে অবরুদ্ধ করেন।

নারায়ণগঞ্জ জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সাজিদুর রহমান বলেন, খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে উত্তেজিত লোকজনকে শান্ত করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করি। পুলিশ সদস্যদের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগের সত্যতা পেলে তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য সুপারিশ করা হবে।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com