গাজীপুরে যুবলীগের সভাপতি জালাল হত্যা মামলায় বিএনপির ১১ নেতা-কর্মীর মৃত্যুদণ্ড

গাজীপুরের কাপাসিয়ায় থানা যুবলীগের সভাপতি জালাল হত্যা মামলায় জাতীয়তাবাদী বিএনপির ১১ নেতাকর্মীকে ফাঁসির রায় দিয়েছে গাজীপুরের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক ফজলে এলাহী ভূইয়া। একই সঙ্গে আসামিদের প্রত্যেককে ১০ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়েছে। আজ (সোমবার) দুপুরে গাজীপুরের জনাকীর্ণ আদালতে এ রায় ঘোষণা করা হয়। দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন, কাপাসিয়া থানা ছাত্রদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ফারুক হোসেন, যুবদলের থানা সদস্য জজ মিয়া, থানা ছাত্রদলের সদস্য আল-আমিন, বিএনপি নেতা বেলায়েত হোসেন বেল্টু, থানা ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি হালিম ফকির, কাপাসিয়া কলেজ ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি জুয়েল, থানা যুবদলের সদস্য মাহবুবুর রহমান রিপন, থানা যুবদলের সাবেক সভাপতি আ. আলীaম, বিএনপি নেতা আতাউর, ফরহাদ ও জয়নাল।

রায়ের প্রতিক্রিয়ায় জালাল সরকারের বাবা আমজাত হোসেন, বাদী ভাই মিলন সরকার ও আত্মীয় স্বজনরা সন্তোষ প্রকাশ কারন। জালালের মৃত্যুকালে রেখে যাওয়া দেড় বছরের একমাত্র মেয়ে শাহরিয়ার জালাল হৃদি বাবার কথা মনে করতে পারছে না। তবে সে পিতার হত্যাকারীরা সর্বোচ্চ সাজা পাওয়ায় খুশি। মামলার আসামি পক্ষের আইনজীবী ড. শহীদউজ্জামান জানান, এ রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আপিল করা হবে। রায় ঘোষণাকালে ফারুক হোসেন, বেলায়েত হোসেন বেল্টু, আবদুল আলীম, আতাউর, ফরহাদ ও জয়নাল উপস্থিত ছিলেন। এ ছাড়া উপজেলা ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি আবদুল হালিম, জজ মিয়া, আল আমিন, মাহবুবুর রহমান রিপন ও জুয়েল পলাতক।

মামলার এজাহার থেকে জানা যায়, ২০০৩ সালের ১৭ আগস্ট বিকেলে কাপাসিয়া উপজেলার পাবুর গ্রামের বলখেলা বাজারের পাশে কয়েকজন দুর্বৃত্ত ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জালাল উদ্দিনকে গুরুতর আহত করে। পরে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। এ ঘটনায় জালাল উদ্দিনের বড় ভাই মিলন সরকার বাদী হয়ে কাপাসিয়া থানায় ১১ জনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা করেন। ২০০৪ সালে ২৩ জানুয়ারি পুলিশ তদন্ত শেষে সব আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করে। আদালতে শুনানিকালে ২২ জন তাঁদের সাক্ষ্য দেন। আদালত বাদী ও বিবাদীপক্ষের আইনজীবীর যুক্তিতর্ক শেষে আজ এ রায় দিলেন। রায়ে একই সঙ্গে আদালত আসামিদের ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেন।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
১৯ বার পঠিত

Leave a Reply