কারাগারের সামনে উৎসুক জনতার ভিড়

৩৭ বার পঠিত

মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াতে ইসলামীর আমির মতিউর রহমান নিজামীর সঙ্গে দেখা করতে কারাগারে যাচ্ছেন পরিবারের সদস্যরা। কারাসূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। ফাঁসি কার্যকরের আগ মুহুর্তে পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে দেখা করার নিয়ম রয়েছে। কারা কর্তৃপক্ষই দণ্ডপ্রাপ্ত ব্যক্তির স্বজনদের খবর দিয়ে নিয়ে আসে। 

মঙ্গলবার দুপুরে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সচিবালয়ে সাংবাদিকদের জানান, সরকার ফাঁসি কার্যকরের জন্য সবকিছু প্রস্তুত করে রেখেছে। জল্লাদ রাজুকে মঙ্গলবার কাশিমপুর থেকে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে আনা হয়েছে। এই প্রতিবেদন লেখার সময় কারাগারের সামনের রাস্তা বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। বিভিন্ন জায়গা বেরিকেড দিয়ে তল্লাশি চৌকি বসানো হয়েছে। 

এদিকে জামায়াতে ইসলামীর আমির মতিউর রহমান নিজামীর ফাঁসি কার্যকর করা নিয়ে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের প্রধান ফটকের সামনে উৎসুক জনতার ভিড় বাড়ছে।ফাঁসির সাজাপ্রাপ্ত আসামি মতিউর রহমান নিজামীকে কাশিমপুর কারাগার থেকে গত রবিবার রাতে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে আনা হয়েছে। তাই তার ফাঁসি কার্যকর নিয়ে দিনভর জল্পনা-কল্পনা চলছে। উৎসুক জনতা নজর রাখছে কেন্দ্রীয় কারাগারে কী ঘটছে এর ওপর। আজ রাতেই ফাঁসি কার্যকর হতে পারে বলে গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে।

মঙ্গলবার সরেজমিনে কেন্দ্রীয় কারাগার এলাকা ঘুরে দেখা যায়, নানা পেশার মানুষ কারাগার চত্বরে ভিড় করছেন। তাদের সবারই জানার ইচ্ছা, কখন ফাঁসি হচ্ছে বদর নেতা নিজামীর?কেন্দ্রীয় কারাগারের আশেপাশের দোকানিদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, যেকোনো ফাঁসি কার্যকরের আগে কারাগার এলাকার আশেপাশের সব দোকান বন্ধ রাখতে কারাকর্তৃপক্ষ নির্দেশ দিয়ে থাকেন। তবে এখন পর্যন্ত তারা এ ধরনের কোনো নির্দেশনা পাননি। নিয়ম অনুযায়ী জেলা প্রশাসনের ম্যাজিস্ট্রেট এসে রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষা চাইবেন কি না সে বিষয়ে জানতে চাইবেন। এ বিষয়ের নিষ্পত্তি হয়ে গেলে নিজামীর স্বজনদের শেষ দেখার জন্য ডাকা হতে পারে, যা আগের রায়গুলো কার্যকরের ক্ষেত্রে হয়েছিল। তবে পুরো বিষয়টি নির্ভর করছে কর্তৃপক্ষের ওপর। সরকারের সবুজ সংকেত পেলে কারা কর্তৃপক্ষ ফাঁসি কার্যকরের ধাপগুলো এগিয়ে নিয়ে যাবে।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com